কুতুবদিয়ায় লবণের মাঠে ধানের চাষ

fec-image

কুতুবদিয়ায় পতিত লবণের মাঠে চলছে ধানের আবাদ। লবণাক্ত সহিষ্ণ ধানের বাম্পার ফলনও হয়েছে চলতি মৌসুমে। লবণ উৎপাদনের দ্বীপ কুতুবদিয়ায় লবণ উৎপাদন শেষে ৪ মাস পতিত থাকে মাঠ। এসব মাঠে লবণ ছাড়া অন্য কোন ফসল উৎপাদিত হয়না। এই পতিত সময়ে কাজে লাগাতে কৃষি অধিদপ্তরের পরামর্শে লবণ পানি সহিষ্ণ বিভিন্ন জাতের ব্রি-ধানের চাষ বিস্তার লাভ করতে করেছে।

উপজেলা কৃষি অফিস সূত্র জানায়, উপজেলার লেমশীখালী, উত্তর ধুরুং, দক্ষিণ ধুরুং ও আলী আকবর ডেইল ইউনিয়নে লবণ মাঠে লবণাক্ত সহিষ্ণ নতুন উদ্ভাবিত উপশী জাতের ব্রি-৬৭,ব্রি-৪৭,ব্রি-৪৮, ব্রি-৭৪, ব্রি-৭৫ প্রভৃতি ধান চাষ হচ্ছে। চলতি মৌসুমে ৬৫ হেক্টর জমিতে এই ধান চাষ করেছেন লবণ চাষিরা। এর মধ্যে লেমশীখালী ইউনিয়নে ২৫ হেক্টর, উত্তর ধুরুং ১৫ হেক্টর, দক্ষিণ ধুরুং ১০ হেক্টর, কৈয়ারবিল ১০ হেক্টর ও আলী আকবর ডেইলে ৫ হেক্টর জমিতে এই ধান চাষ হয়েছে। গত বছর উপজেলায় মোট মাত্র ২০ হেক্টর জমিতে লবনাক্ত সহিষ্ণ ধানের চাষ হয়েছিল।

লেমশীখালী ইউনিয়নে দায়িত্বপ্রাপ্ত উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা মিজানুল ইসলাম বলেন, লবণ চাষিদের নতুন উদ্ভাবিত লবণ সহিষ্ণ ধান চাষে উদ্বুদ্ধ করার চেষ্টা করে যাচ্ছেন। চাষিরা সাড়া দিচ্ছেন। পরিশ্রম হলেও ফলন ভাল। প্রতি একরে ৬০ মণ ধান উৎপাদন হচ্ছে বলে তিনি জানান। অপর দিকে চাষিরা লবণ চাষের জন্য একসনা জমি লাগিয়ত নিয়ে ধান চাষে লাভবান হলেও জমির মালিককে বাড়তি কোন টাকা দিতে হচ্ছেনা। ফলে বীজ, সার শ্রমিকের খরচ বাদে পুরো ধান উঠছে চাষিদের ঘরে।

লেমশীখালী ইউপি চেয়ারম্যান আক্তার হোছাইন বলেন, তার বেশ কয়েকজন লবণ চাষি নতুন উদ্ভাবিত লবণাক্ত সহিষ্ণ ধান চাষ করেছেন। লবণ চাষের জন্য জমি লাগিয়ত নিয়ে পরীক্ষামূলক ধান চাষে তিনি বাড়তি টাকা নেন না। চাষিরা পতিত মাঠে বাড়তি ধান চাষ করে স্বাবলম্বী হতে পারবে বলে তিনি মনে করেন।

উপজেলা উদ্ভিদ সংরক্ষণ কর্মকর্তা মো. নাজেম উদ্দিন বলেন, লবণ চাষিরা কঠোর পরিশ্রম করে লবণের ন্যায্য দাম পাচ্ছেনা। অনেক চাষি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে প্রতিবছর। একসনা লবণ চাষের জন্য জমি লাগিয়ত নিয়ে উপশী জাতের লবণাক্ত সহিষ্ণ ধান চাষ করে লাভবান হচ্ছে। ফলে রাতারাতি এই ধান চাষে ব্যাপক আগ্রহ দেখা যাচ্ছে। ফলনও হয়েছে বাম্পার।। চারা রোপন থেকে ১২০ দিনে ধান কাটা সম্ভব। এসময়টা লবণের মাঠ পতিত পড়ে থাকে। ধান কেটে একই জমিতে লবণ চাষ করতেও কোন অসুবিধা হচ্ছেনা। আগামী বছরেও লবণ মাঠে আরও অধিক ধান চাষ করবে চাষিরা এমন প্রত্যাশা করেন তিনি।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: কুতুবদিয়ায়, ধানের, মাঠে
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

nineteen − 8 =

আরও পড়ুন