কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে জমি দখলসহ প্রতারণার অভিযোগ

fec-image

পার্বত্য বান্দরবানে কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে জমি দখলসহ প্রতারণার অভিযোগ উঠেছে। প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান শহীদ আল বোখারীর বিরুদ্ধে প্রতারণা, দখলবাজ, মামলাবাজ, সন্ত্রাস ও জালিয়াতির অভিযোগ তুলেছেন বেশ কয়েকটি পরিবার।

শনিবার (২ জুলাই) ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাগর-রুনি মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি জানানো হয়। তবে এই অভিযোগ কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনে ‘ডাহা মিথ্যা ও বানোয়াট’ বলে দাবি করা হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে ভুক্তভোগী পরিবারের পক্ষ থেকে বলা হয়, শহীদ আল বোখারী লামা, বান্দরবানে নিজেকে ‘ধর্ম প্রচারক’ দাবি করে আসছেন। তার ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসীদের কারণে রাতে ছেলেমেয়ে নিয়ে নিরাপদে ঘুমাতে পারি না। এই সন্ত্রাসী বাহিনীর জিম্মি থেকে আমরা বাঁচতে চাই, নিরাপদ বসবাস চাই।

এ ব্যাপারে স্থানীয় প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করে আরও বলা হয়, শহীদ আল বোখারীর বৈজ্ঞানিক কোয়ান্টাম মেডিটেশন একটি মহাপ্রতারণা। তার তত্ত্বাবধানে পরিচালিত লামা উপজেলার, ডলুছড়ী এলাকায় কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশন এখন একটি সন্ত্রাসী, ভূমিদস্যু, জালিয়াত চক্র ও প্রতারণার প্রধান কার্যালয় হিসেবে গড়ে উঠেছে।

ভুক্তভোগী পরিবারের দাবি, লামার ডলুছড়ী এলাকার কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনের অফিসে প্রায় এক হাজার বেতনভুক্ত সন্ত্রাসী রয়েছে। যাকাতের টাকায় সুদের ব্যবসা হয় কীভাবে? কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনের এত টাকা কোথা থেকে আসে? সরকার ও দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) কাছে তাদের আয়-ব্যয়ের খাত তদন্ত করার আরজি জানাচ্ছি।

সংবাদ সম্মেলনে সংহতি জানিয়ে এশিয়া মানবাধিকার সংস্থার মহাসচিব নজরুল ইসলাম বাবলু বলেন, কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশন মানবতার নাম করে ভয়াবহ অনিয়ম করছে। এটা খুবই দুঃখজনক। অবিলম্বে ভুক্তভোগী পরিবারের অভিযোগগুলো তদন্ত করে এবং পরিবারগুলোকে জরুরি নিরাপত্তা দেওয়ার আহ্বান জানাচ্ছি।

ভুক্তভোগী পরিবারের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মো. আব্দুল গফুর, মো. আশরাফ আলী, মো. খলিলুর রহমান, মো. রফিকুল ইসলাম, মো. আবু রায়হান, মো. নাসির উদ্দিন, রহিমা বেগম, রাফিজা বেগম, মো. শাহা মিয়া, মো. আবুল কাশেম, মো. জসীম উদ্দিন, সালমা বেগম, মো. ইসমাইল, মো. আব্দুল রশীদ প্রমুখ।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনের অর্গানিয়ার (লামা) অ্যাডভোকেট আরিফুল ইসলাম বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, অভিযোগগুলো পুরোপুরি মিথ্যা ও বানোয়াট। আমাদের এখানে ৭৫০-৮০০ জন স্টাফ কাজ করছেন। তাদের সন্ত্রাসী বলা দুঃখজনক।

নারী নির্যাতনের অভিযোগও মিথ্যা দাবি করে তিনি আরও বলেন, কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান শহীদ আল বোখারীর বিরুদ্ধে ‘প্রতারণা ও নারী নির্যাতনের’ কোনও অভিযোগই নেই। অভিযোগকারীরা উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে এসব উদ্ভট কথা বলছে। তাদের আমরা চিনিই না।

 

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: অপরাধ, বান্দরবান
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

eleven + sixteen =

আরও পড়ুন