গুইমারায় জমে উঠেছে ঐতিহ্যবাহী চাইন্দামুনি বৌদ্ধমেলা

fec-image

ফাল্গুনী পূর্ণিমা, বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের একটি ধর্মীয় উৎসব। প্রতি বছর ফাল্গুনী পূর্ণিমার এই দিনে শুরু হয়, পার্বত্য খাগড়াছড়ির গুইমারা উপজেলার ঐতিহ্যবাহী এই চাইন্দামুনি বৌদ্ধমেলার কার্যক্রম। প্রায় ২শত বছরের পুরনো পার্বত্যাঞ্চলের ঐতিহ্যবাহী এ মেলায় প্রতি বছর অর্ধলক্ষাধিক লোকের সমাগম ঘটে। চাইন্দামুনি বৌদ্ধ বিহারকে উপলক্ষ করে বিহারের চারপাশের জমিতে চলে এ মেলা।

বুধবার সকাল ৯টায় বৌদ্ধ পূজার মাধ্যমে এ মেলার কার্যক্রম শুরু করেন বিহার অধ্যক্ষ রাজেন্দ্র মহাথেরো। এর পরে তিন পার্বত্য জেলাসহ দেশের বিভিন্ন বিহার থেকে আগত ভান্তে ও বিহার অধ্যক্ষদের উপস্থিতিতে প্রদীপ প্রজ্জলন, প্রবজ্যা গ্রহণ, কল্প তরু, সংঘ দান ও ধর্ম দেশনার মধ্যে দিয়ে বেশ জমে উঠেছে এ মেলার কার্যক্রম।

ধর্ম দেশনা নিতে বিভিন্ন স্থান থেকে আগত উপাসক-উপাসিকারা ভান্তেদের জন্য স্বযত্নে ভক্তি আর শ্রদ্ধার সহিত ছইং আনতে দেখা গেছে। তবে পার্বত্য এলাকার বিভিন্ন প্রতিকুলতার কারণে এবার ৩দিনের পরিবর্তে মেলা চলছে একদিন।

দিনব্যাপী এই মেলায় তিন পার্বত্য জেলার বিভিন্ন স্থান থেকে আসা বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীসহ বিভিন্ন ধর্মাবলম্বী দর্শণার্থীদের উপস্থিতিতে মেলা প্রাঙ্গণ পরিনত হয়েছে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির মিলন মেলায়। সকলের জন্য ছিলো নিরামিষ ভোজনের ব্যবস্থাও।

মেলায় পাহাড়ের ঐতিহ্যবাহী পন্য সামগ্রী ও দেশি নানান রকম পন্যের শত শত স্টল বসেছে। ঐতিহ্যবাহী বিভিন্ন খেলাধুলা, ভাগ্য লটারি ও উপজাতীয় কল্প তরু নৃত্যের আয়োজন ছিলো। মেলায় বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বী তরুণ তরুনীদের সাথে একাকার হয়ে মনের হরসে কেনাকাটা করছে বাঙ্গালী তরুণ-তরুনীরা।

উদ্বোধনকালে বিহার ও মেলা পরিচালনা কমিটির পক্ষে চাইশ্যে মারমা বলেন, মূলত ফাল্গুনী পূর্ণিমা বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের একটি ধর্মীয় উৎসব। বুদ্ধের স্মরণে ফাল্গুন মাসের পূর্ণিমায় এই উৎসব পালিত হয়। এর অপর নাম “জ্ঞাতিমিলন পূর্ণিমা বা জ্ঞাতি সম্মেলন তিথি”। এই পূর্ণিমা বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীদের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ ও অর্থবহ। এজন্য এই দিনে চাইন্দামুনি বৌদ্ধ মেলাসহ বৌদ্ধ অধ্যুষিত অনেক স্থানে মেলা বসে।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন