‘থানচিতে এখনও অধিকাংশ মা ও শিশু পুষ্টিহীনতায় ভুগছে’

fec-image

পাহাড়ে পাহাড়ি অধিকাংশ মা ও শিশুরা পুষ্টিহীনতায় ভুগছে। পুষ্টিকর খাদ্য উৎপাদন, কার্যকর গর্ভনেন্স ব্যবস্থাকে সক্রিয়, শক্তিশালীকরন ও ব্যবহার উপযোগীকরণ এবং কমিউনিটি পর্যায়ের পুষ্টি সংবেদনশীল সচেতনতা, চাহিদা এবং আচরণগত পরিবর্তন বৃদ্ধি করনসহ জলবায়ু স্মার্ট ভ্যালু চেইনের প্রসার ঘটানো হলে পুষ্টিহীনতা থেকে মুক্ত করা সম্ভব হবে বলে বক্তারা অভিমত ব্যক্ত করেছেন ।

বৃহস্পতিবার (২৯ আগস্ট) সকাল ১০টায় উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে সমন্বিত পুষ্টি কর্মপরিকল্পনা জুলাই ২০১৯ হতে জুন ২০২০ অর্থবছরের প্রণয়নের দিনব্যাপী কর্মশালায় বক্তারা  এ সব কথা বলেন।

স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন কারিতাস বাংলাদেশ এর থানচি উপজেলা লিন প্রকল্পের আয়োজনে উপজেলা প্রশাসনের ১৭টি সরকারি অধিদপ্তরে কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি, শিক্ষক ও সাংবাদিকদের স্বতস্ফূর্ত অংশগ্রহণের কারিতাসের লিডারশিপ টু এনসিউর এডিকোয়েট নিউট্রিশন (লিন) প্রকল্প আওতায় এ কর্মশালার আয়োজন করেন।

কর্মশালা উদ্বোধন করেন থানচি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান থোয়াইহ্লামং মারমা, সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ আরিফুল হক মৃদুল, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নুমেপ্রু মারমা, অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ জোবাইরুল হক প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন।

স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন কারিতাস বাংলাদেশ লিডারশিপ টু এনসিউর এডিকোয়েট নিউট্রিশন (লিন) প্রকল্পের উপজেলা কো-অর্ডিনেটর লাপ্রাড ত্রিপুরা সাংবাদিকদের জানান, লিন প্রকল্পটি ২০১৮ হতে ২০২৩ পর্যন্ত থানচি উপজেলা ৪টি ইউনিয়নের মাতৃত্ব ও শিশু পুষ্টির উন্নয়নে অবদান রাখার জন্য কাজ করে যাবে ।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: উপজেলা পরিষদ মিলনায়তন, পাহাড়ি, সমন্বিত পুষ্টি কর্মপরিকল্পনা
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

fourteen − four =

আরও পড়ুন