নাইক্ষ্যংছড়িতে ভারপ্রাপ্ত সুপারের বিরুদ্ধে শিক্ষার্থীদের স্মারকলিপি

নাইক্ষ্যংছড়ি প্রতিনিধি:
নাইক্ষ্যংছড়ির চাকঢালা মহিউচ্ছুন্নাহ দাখিল মাদরাসার ভারপ্রাপ্ত সুপার আবু বক্কর ছিদ্দিকের বিরুদ্ধে অপকর্ম ও দুর্নীতির অভিযোগ এনে স্মারকলিপি দিয়েছে একই মাদারাসার ছাত্রছাত্রীরা। বৃহস্পতিবার দুপুরে নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ে শিক্ষার্থীরা এ স্মারকলিপি প্রদান করে। এতে তারা অভিযুক্ত শিক্ষককে বহিষ্কারের দাবী জানান।

শিক্ষার্থীদের অভিযোগ- ভারপ্রাপ্ত সুপার আবু বক্কর ছিদ্দিক নিজ মেয়ের সাথে অনৈতিক কর্মকাণ্ডের ঘটনা ফাঁস হওয়ার পর থেকে পলাতক রয়েছেন। ইতিপূর্বে মাদরাসা পরিচালনা কমিটির সভাপতি শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে জোরপূর্বক স্বাক্ষর আদায় করার অভিযোগে তাকে বহিষ্কার করে। এদিকে বর্তমান ভারপ্রাপ্ত সুপার তাকে বাঁচানোর জন্য আপ্রাণ চেষ্টা চালাচ্ছেন বলে শিক্ষার্থীরা অভিযোগ করেন।

স্মারকলিপিতে আরো উল্লেখ করা হয়েছে- পলাতক ভারপ্রাপ্ত সুপার আবু বক্কর ছিদ্দিক মাদরাসার ছাত্রীদেরকে পরীক্ষায় এ প্লাস, সরকারি চাকরিজীবী স্বামী, চাকরির ব্যবস্থা ও গরীব অসহায় মেয়েদের বৃত্তির প্রলোভন দেখিয়ে অনৈতিক কাজে লিপ্ত করেন।

এছাড়াও তার বিরুদ্ধে মাদরাসার ৮ম শ্রেণীর ৫৫জন শিক্ষার্থীর প্রতিজনের ভর্তি ফি বাবদ ৫২০ টাকা, রেজিস্ট্রেশন ফি ৪০ টাকা ও সাত মাসের বেতনের প্রায় ৫০-৬০ হাজার টাকা অফিসে জমা না দেওয়ার অভিযোগ তোলেন শিক্ষার্থীরা।

মাদারাসার কেবিনেট চেয়ারম্যান ও ৮ম শ্রেণীর ছাত্র জয়নাল আবেদিন, সদস্য ১০ম শ্রেণীর ছাত্র আবদুল খাইর, ৭ম শ্রেণীর ছাত্র মো: আবুল কালামসহ আতিক উল্লাহ, নুরুল আমিন, আবদুল্লাহ জানান- মাদরাসার সকল শিক্ষার্থীদের আপত্তির প্রেক্ষিতে তারা ভারপ্রাপ্ত সুপারের অপসারণ চেয়ে স্মারকলিপি দিয়েছেন। এ বিষয়ে প্রশাসনও জরুরী পদক্ষেপ গ্রহণ করবেন বলে তারা আশা প্রকাশ করেন।

যোগাযোগ করা হলে নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবু শাফায়াৎ মুহম্মদ শাহেদুল ইসলাম বলেন- ‘‘আমি স্টেশনের বাইরে থাকায় স্মারকলিপিটি আমার হস্তগত হয়নি’’ তবে স্মারকলিপির অভিযোগের বিষয় রোববার খতিয়ে দেখা হবে বলে তিনি জানান।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

two × 5 =

আরও পড়ুন