বান্দরবানের অপরুপা নীলাচলে ‘ইত্যাদি’

fec-image

প্রকৃতির ঢেউ খেলানো পাহাড়-ঝর্ণা-নদী-সবুজ অরণ্য আর ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর বিচিত্র সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যে ঘেরা অপরূপা বান্দরবানের নীলাচলে ধারণ করা হয়েছে এবারের ‘ইত্যাদি’। এ পর্বটি আগামী শুক্রবার (২৯ নভেম্বর) বিটিভি ও বিটিভি ওয়ার্ল্ডে রাত আটটার বাংলা সংবাদের পর প্রচারিত হবে।

গত ১৬ নভেম্বর সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ১৬০০ ফুট ওপরে টাইগার পাহাড়ের চূড়ায় অবস্থিত অপরূপ পর্যটন কেন্দ্র নীলাচলে ধারণ করা হয় এবারের পর্বটি। বান্দরবানের ঐতিহ্যের সঙ্গে সাদৃশ্য রেখে নির্মাণ করা হয় আলোকিত মঞ্চ। হাজার হাজার দর্শকের উপস্থিতিতে ধারণ করা হয়েছে পর্বটি।

অনুষ্ঠানটির প্রধান হানিফ সংকেত জানান, বান্দরবানের ইতিহাস, ঐতিহ্যের পাশাপাশি এবারের পর্বে রয়েছে প্রাকৃতিক সৌন্দর্যমণ্ডিত, দর্শনীয় ও পর্যটকদের জন্য আকর্ষণীয় স্থানগুলোর ওপর তথ্যভিত্তিক প্রতিবেদন। এছাড়া রয়েছে পার্বত্য এলাকার ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর চঞ্চল কান্তি চাকমার ব্যতিক্রমী উদ্যোগের ওপর একটি মানবিক প্রতিবেদন। পৃথিবীর কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ সমুদ্র সৈকতের পরিবেশের ওপর রয়েছে একটি সচেতনতামূলক প্রতিবেদন।

এবারের বিদেশি প্রতিবেদনে রয়েছে ভারতের তামিলনাড়ু রাজ্যের পাথর নগরী বলে খ্যাত মামালাপুরামের কিছু স্মৃতিস্তম্ভের ওপর সচিত্র প্রতিবেদন।

মূল গান রয়েছে দু’টি। ইত্যাদিতে সবসময় ভিন্ন আঙ্গিকে বিষয়ভিত্তিক গান প্রচারের চেষ্টা করা হয়। সেই ধারাবাহিকতায় এবারের ইত্যাদিতে রয়েছে বাংলা ও মারমা গানের দু’জন প্রতিষ্ঠিত শিল্পীর কণ্ঠে একটি অনুরাগের গান। শিল্পী দু’জন হলেন, বাংলা গানের আঁখি আলমগীর এবং মারমা গানের মান মান সিং। গানটি লিখেছেন মোহাম্মদ রফিকউজ্জামান, সুর করেছেন হানিফ সংকেত, সংগীতায়োজন করেছেন মেহেদী।

এছাড়া বান্দরবানের সবুজ-শ্যামল রূপ বৈচিত্র্য নিয়ে মোহাম্মদ রফিকউজ্জামানের কথায়, হানিফ সংকেতের সুর ও মেহেদীর সংগীতায়োজনে আরেকটি গানের সঙ্গে নৃত্য পরিবেশন করেছেন বান্দরবানের ১১টি নৃগোষ্ঠী ও বাঙালি শিল্পীদের সমন্বয়ে শতাধিক নৃত্যশিল্পী। এই গানে কণ্ঠ দিয়েছেন চথুইফ্রু মারমা, কমল, হ্লামেচিং মারমা ও তানজিনা রুমা। মারমা ভাষায় গানটি অনুবাদ করেছেন চথুইফ্রু মারমা, নৃত্য পরিচালনা করেছেন প্রাণ গোপাল।

দর্শক পর্বের নিয়ম অনুযায়ী ধারণস্থান বান্দরবানকে ঘিরে করা প্রশ্নোত্তরের মাধ্যমে উপস্থিত দর্শকের মাঝখান থেকে ৪ জন দর্শক নির্বাচন করা হয়। ২য় পর্বে নির্বাচিত দর্শকরা বান্দরবানের কিছু উল্লেখযোগ্য বিষয় নিয়ে রচিত একটি নাট্যাংশে অভিনয় করেন, যা ছিল বেশ উপভোগ্য।

নিয়মিত পর্বসহ এবারও রয়েছে বিভিন্ন সমসাময়িক ঘটনা নিয়ে বেশকিছু সরস অথচ তীক্ষ্ণ নাট্যাংশ। একটি নাটকের মাধ্যমে দীর্ঘদিন পর আবারও টিভি পর্দায় ফিরছেন খ্যাতিমান অভিনেতা এটিএম শামসুজ্জামান ও মাসুদ আলী খান।

যথারীতি অনুষ্ঠানটি রচনা, পরিচালনা ও উপস্থাপনা করেছেন হানিফ সংকেত। নির্মাণ করেছে ফাগুন অডিও ভিশন। স্পন্সর করেছে কেয়া কসমেটিকস লিমিটেড।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

six + 13 =

আরও পড়ুন