বিচ্ছিন্ন ঘটনার মধ্যদিয়ে শেষ হলো কক্সবাজারের উপজেলা নির্বাচন

fec-image

বিচ্ছিন্ন ঘটনার মধ্যদিয়ে সম্পন্ন হলো কক্সবাজারের চকরিয়া, পেকুয়া ও নবগঠিত ঈদগাঁও উপজেলা নির্বাচন।

মঙ্গলবার (২১ মে) বেসরকারিভাবে ঘোষিত ফলাফলে এই তিন উপজেলায় একটিতে বিএনপি ও দুটিতে আওয়ামী লীগের প্রার্থী চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন।

তারমধ্যে চকরিয়ায় উপজেলা নির্বাচনেও হারলেন সাবেক সংসদ সদস্য জাফর আলম। ঘোড়া প্রতীক নিয়ে তিনি পেয়েছেন ৫২ হাজার ২৫২ ভোট। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আলহাজ্ব ফজলুল করিম সাঈদী দোয়াত-কলম প্রতীক নিয়ে ৫৬ হাজার ১২২ ভোট পেয়ে দ্বিতীয়বারের মতো চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। জাফর আলমের চেয়ে তিনি ৩ হাজার ৮৭০ ভোট বেশি পেয়েছেন। এছাড়া এখানে ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন বেলাল উদ্দিন শান্ত। মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন হাঁস প্রতীকের প্রার্থী জাহানারা পারভিন।

পেকুয়ায় ২২ হাজার ৯৬১ ভোট পেয়ে তিনবারের মতো চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন জেলা বিএনপির সদস্য ঘোড়া প্রতীকের প্রার্থী শাফায়াত আজিজ রাজু। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন আনারস প্রতীকের প্রার্থী রোমানা আকতার। তিনি পেয়েছেন ১৮ হাজার ১৮৭ ভোট। এছাড়া দোয়াত কলম প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী আশরাফুল ইসলাম সজীব ৬ হাজার ১৭৯, মোটরসাইকেল প্রতীকের আবুল কাশেম ৬ হাজার ৬৭৩ ও টেলিফোন প্রতীকের এস,এম গিয়াস উদ্দিন ৪৮৯ ভোট পেয়েছেন। এখানে ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন মাহাবুবুল করিম। মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন কলসি প্রতীকের প্রার্থী ইয়াছমিন সুলতানা।

১৬ হাজার ৬৭২ ভোট পেয়ে নবগঠিত ঈদগাঁও উপজেলার প্রথম চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. আবু তালেব। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী সামশুল আলম মোটরসাইকেল প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ১২ হাজার ৬৩৮ ভোট। এছাড়া অন্য চেয়ারম্যান প্রার্থী সেলিম আকবর আনারস প্রতীকে নিয়ে ৬ হাজার ২১ ভোট, কুতুব উদ্দিন চৌধুরী দোয়াত কলম প্রতীক নিয়ে ১ হাজার ৪৫ ভোট ও নুরুল কবির ঘোড়া প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ২০৭ ভোট। এছাড়া ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন চশমা প্রতীকের প্রার্থী আহমদ করিম সিকদার। মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন কলসি প্রতীকের প্রার্থী কাউসার জাহান জেসমিন।

এর আগে মঙ্গলবার সকাল ৮টা থেকে এই ৩ উপজেলায় ইভিএম পদ্ধতিতে ভোটগ্রহণ শুরু হয়। সকালে ভোটারের উপস্থিতি কম থাকলেও দুপুর নাগাদ স্বতঃস্ফূর্ত ভোট দিতে দেখা যায় ভোটারদের। বিকাল ৪টা পর্যন্ত একটানা ভোটগ্রহণ চলে। তবে কয়েক জায়গায় বিচ্ছিন্ন কিছু ঘটনা ঘটেছে। ঈদগাঁওতে বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে প্রতিপক্ষের ছুরিকাঘাতে ছফুর আলম নামের টেলিফোন প্রতীকের একজন কর্মী নিহত হয়েছে।

নির্বাচন কমিশন সূত্রে জানা যায়, এই তিন উপজেলায় ২০২ কেন্দ্রে মোট ভোটার ছিল ৫ লাখ ৮৫ হাজার ১৬৩ জন।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: উপজেলা পরিষদ নির্বাচন
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন