মিয়ানমারে চলমান অস্থিরতায় সীমান্তে নিরাপত্তা জোরদার

fec-image

মিয়ানমারের দুই রাজ্যে চলমান অস্থিরতায় সীমান্ত নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। যেকোনো ধরনের অনুপ্রবেশ ঠেকাতে বিজিবি সতর্ক অবস্থানে রয়েছে বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন। একই সঙ্গে কক্সবাজারের রোহিঙ্গা শিবিরে সংঘবদ্ধ নাশকতা ঠেকাতে বাড়ানো হচ্ছে টহল।

মিয়ানমারের বান্দরবান সীমান্ত লাগোয়া রাজ্য কানপট্টি ও হাকা। ভারী অস্ত্রসহ সেখানে সেনা মোতায়েন করেছে দেশটি। এতে উদ্বেগ জানিয়েছে জাতিসংঘের সংস্থা ইউএনএইচসিআর।

৮ অক্টোবরের বিবৃতিতে তারা জানিয়েছে, গত এক মাস রাজ্য দুটিতে বসতি ধ্বংস ও নিরস্ত্র বাসিন্দাদের ওপর নির্যাতন চালিয়েছে মিয়ানমার সেনাবাহিনী। বন্ধ করে দেয়া হয়েছে ইন্টারনেট সুবিধা।

এ ঘটনায়, বর্তমানে সতর্ক অবস্থানে রয়েছে বাংলাদেশ। ২০১৭ সালের তিক্ত অভিজ্ঞা কারণে, এবারে সীমান্ত সুরক্ষায় সম্ভাব্য সব ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্র সচিব।

রোহিঙ্গা নেতা মুহিবুল্লাহ হত্যার পর আশ্রয় শিবিরে নিরাপত্তা জোরদারে কাঁটাতারের বেড়াসহ অতিরিক্ত সার্চ লাইট ও ওয়াচ টাওয়া র বসানো দ্রুত শেষ করতে বলা হয়েছে। ক্যাম্পে শুধু ইয়াবা নয়, নতুন ধরনের মাদক উদ্ধারেও দেখা দিয়েছে উদ্বেগ।

এছাড়া রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন প্রশ্নে দ্রুতই নেপিদোর সঙ্গে আলোচনায় বসছে। এ নিয়ে দু-দেশের রাষ্ট্রদূতের কাজ করছেন বলেও জানিয়েছেন পররাষ্ট্র সচিব।

সূত্র: Independent

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

3 − 1 =

আরও পড়ুন