রাঙ্গামাটিতেও পরিবহন ধর্মঘট: ভোগান্তিতে দূরপাল্লার যাত্রী ও সাধারণ পর্যটকরা

fec-image

রাঙ্গামাটিতেও ৯ দফা দাবিতে অনির্দিষ্টকালের জন্য পরিবহন ধর্মঘট চলছে। চট্টগ্রাাম বিভাগীয় গণ ও পণ্য পরিবহন মালিক ঐক্য পরিষদের আহ্বানে এই ধর্মঘট পালিত হচ্ছে। ররিবার (৮ সেপ্টেম্বর ) সকাল থেকে শহরে অটোরিক্সা চলাচলা করলেও ধর্মঘটের কারণে দূরপাল্লার কোন যাত্রীবাহী বাস ও পণ্যবাহি ট্রাক ছেড়ে যায়নি। এতে ভোগান্তিতে পড়েছে দূরপাল্লার যাত্রী ও সাধারণ পর্যটকরা।

শহরের বেশ কয়েকটি বাস কাউন্টারের ম্যানেজারের সাথে কথা বলে জানা গেছে, সকাল থেকে কোন দূরপাল্লার যাত্রীবাহী বাস ও পন্যবাহী ট্রাক ছেড়ে যায়নি। ফলে গাড়ি থাকলেও কোন টিকেট বিক্রি করা হচ্ছে না বলে তিনি জানান।

এ বিষয়ে চট্টগ্রাম- রাঙ্গামাটি বাস মালিক সমিতির সভাপতি মোঃ মঈন উদ্দিন সেলিম জানান, গণ ও পণ্য পরিবহন মালিক ঐক্য পরিষদের ৯ দফা দাবি মেনে না নেওয়ায় রাঙ্গামাটিতেও ধর্মঘট পালিত হচ্ছে। এই দাবি যতদিন মেনে নেয়া হবে না, ততদিন পর্যন্ত অনির্দিষ্টকালের জন্য ধর্মঘট পালিত হবে।

৯ দফা দাবি গুলো হলো:

১. পণ্য ও পণ্য পরিবহণের কাগজ পত্র হালনাগাদ করার জন্য জরিমানা মওকুফ করতে হবে। জরিমানা মওকুফের সিদ্ধান্ত না আসা পর্যন্ত কাগজপত্র যাছাই বাছাইয়ের নামে হয়রানি বন্ধ করতে হবে। ২. বিআরটিএ ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেট কর্তৃক ভোক্তা অধিকার আইন প্রয়োগ করে গণ ও পণ্য পরিবহনে কোন জরিমানা আদায় করা যাবেনা। হাইওয়ে ও থানা পুলিশ কর্তৃক গাড়ি জব্দ ও নিকুইজিশন করা যাবেনা। ৩. চট্টগ্রাম মেট্রো এলাকায় গাড়ির ইকোনমিক লাইফের অজুহাত দেখিয়ে ফিটনেস ও পারমিট নবায়ণ বন্ধ রাখা যাবেনা। ৪. ট্রাফিক পুলিশ কর্তৃক যান্ত্রিক ত্রুটিযুক্ত গাড়ি ছাড়া অন্য কোন অজুহাত দেখিয়ে গণ ও পণ্য পরিবহণ টু বা ডাম্পিং করা যাবেনা। ড্রাইভার কর্তৃক চালিত গাড়ির রেকার ভাড়া আদায় করা যাবেনা। ৫. সহজ শর্তে চালকদের ড্রাইভিং লাইসেন্স প্রদান করতে হবে। কাগজপত্র হালনাগাদের ক্ষেত্রে বিআরটিএ এর কার্যক্রমে ভোগান্তি বন্ধ করতে হবে।

৬. বৃহত্তর চট্টগ্রাম বিভাগের সড়ক ও মহাসড়কে গ্রাম সিএনজি ও মেট্রো সিএনজি চলাচলের ক্ষেত্রে আরটিসি এর সিদ্ধান্ত কার্যকর করতে হবে। ৭. ঢাকা চট্টগ্রামের মহাসড়কে স্থাপিত ওয়ে স্কেল দুটি পরিচালনার দায়িত্ব বাংলাদেশ সেনাবাহিনীকে দিতে হবে। ৮. মহাসড়কে পণ্য চুরি/ ডাকাতি রোধ কল্পে বর্তমান আইনের পরিবর্তণ ঘটিয়ে নতুন আইন প্রনয়ণ করতে হবে। ৯. মহাসড়ক ও মেট্রো শহর এলাকায় গণ ও পণ্য পরিবহণ যত্রতত্র দাড় করিয়ে চেকিং এর নামে হয়রানি বন্ধ করে নির্দিষ্ট দুটি স্থানে চেকিং পয়েন্ট নির্ধারণ করতে হবে।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: পণ্য ও পণ্য পরিবহণ, পরিবহন ধর্মঘট, রাঙ্গামাটি বাস মালিক সমিতি
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

12 + 20 =

আরও পড়ুন