রুমা-থানচি সফরে কৃষি মন্ত্রী আবদুর রাজ্জাক: বিদেশের চাহিদা পূরণ করবে পাহাড়ের ফল

fec-image

কাজু বাদাম ও কফি চাষের সম্ভাবনাকে কাজে লাগাতে পাহাড়ে এই চাষ সম্প্রসারণ করতে সবধরনের ব্যবস্থা নেয়া হবে। পাহাড়ে কাজু বাদাম, কফি ও আমের সম্ভাবনা বেশি। এই চাষ সম্প্রসারণে কৃষকদের এগিয়ে আসতে হবে। কৃষি মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী ড. মো. আবদুর রাজ্জাক শনিবার (১৯ জুন) বান্দরবানের রুমা ও থানচি উপজেলায় কাজু বাদাম, কফি বাগান এবং আমসহ অন্যান্য ফলবাগান পরিদর্শনে গিয়ে কৃষকদের সঙ্গে আলাপে এ কথা বলেছেন। এসময় সঙ্গে ছিলেন পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি।

রুমা মুনলাইপাড়া সেন্টারে স্থানীয় কৃষকদের সঙ্গে আলাপকালে কৃষি মন্ত্রী আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাত ধরে কৃষিতে আমূল পরিবর্তন এসেছে। আগামীতে পাহাড়ের কৃষি থেকে উৎপাদিত ফলফলাদি প্রসেসিং করে উন্নতমানের খাদ্য হিসেবে বিদেশে রপ্তানি করা হবে।

তিনি আরও বলেন, বিভিন্ন দেশে কাজুবাদাম, কফির বেশ চাহিদা রয়েছে। আর এই চাহিদার বড় একটি অংশ পাহাড়ি কৃষকদের মাধ্যমে পূরণ হবে বলে প্রত্যাশা করেন তিনি।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে পার্বত্য মন্ত্রী ও স্থানীয় সংসদ সদস্য বীর বাহাদুর উশৈসিং বলেন, পাহাড়ি জনগোষ্ঠীর জুম চাষ শ্রম ও খরচ বেশি। মিশ্র ফল বাগান, বাশের চারা, গাভী বিতরণ ও মসল্লা চাষের পাশাপাশি আগামীতে পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের মাধ্যমে কৃষকের কাছে বিনা পয়সায় কাজু বাদাম ও কফি বাগান সম্প্রসরাণে সহযোগিতার আশ্বাস দেন তিনি।

এর আগে সকালে কৃষি মন্ত্রী হেলিকপ্টারযোগে রুমা উপজেলায় পৌছলে তাকে নিজ এলাকায় স্বাগত জানান পার্বত্যমন্ত্রী ও স্থানীয় সংসদ সদস্য বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি। পরে রুমা সদরে কাজু বাদাম, কফি বাগান পরিদর্শন শেষে থানচি উপজেলায়ও একইভাবে বিভিন্ন ফলবাগান পরিদর্শণ করেন দুই মন্ত্রী। রবিবার সকালে বান্দরবান জেলা সদরে কাজুবাদাম ও কফি গবেষণা উন্নয়ন ও সম্প্রসারণ প্রকল্পের অবহিতকরণ এক কর্মশালায় যোগদানের কথা রয়েছে মন্ত্রীর।

এসময় অন্যান্যদের মাঝে উপস্থিত ছিলেন কৃষি মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. মেসবাহুল ইসলাম, অতিরিক্ত সচিব ওয়াহিদা আকতার, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মো. আসাদুল্লাহ, বিএডিসির নির্বাহী চেয়ারম্যান ড. শেখ মো. বখতিয়ার, বান্দরবান জেলা প্রশাসক ইয়াছমিন পারভীন তিবরীজি, পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের উপসচিব (সদস্য-বাস্তবায়ন) মোহাম্মদ হারুন-অর-রশিদ, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক ড. একেএম নাজমুল হক, রুমা উপজেলা চেয়ারম্যান উহ্লাচিং মারমা, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. ইয়ামিন হোসেন, থানচি উপজেলা চেয়ারম্যান থোয়াই হ্লা মং মারমা, উপজেলা নির্বাহী অফিসার আতাউল গণি ওসমানীসহ বিভিন্ন বিভাগীয় কর্মকর্তা ও রাজনৈতিক নেতৃবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

twenty − five =

আরও পড়ুন