রোয়াংছড়িতে স্ত্রীকে পিটিয়ে হত্যা ও ঘাতক স্বামী আটক

fec-image

বান্দরবানের রোয়াংছড়ি লাপাইগয় পাড়াতে অংমেসিং মারমা (৩০) কে ঘাতক স্বামী ক্যনুঅং মারমা (৩৮) পিটিয়ে হত্যা করেছে।

পুলিশ ও পাড়াবাসিদের সূত্রে জানা গেছে, নিহত ব্যক্তি রোয়াংছড়ি উপজেলা ৩নং আলেক্ষ্যং ইউনিয়নে ৬নং ওয়ার্ড কচ্ছপতলি পাড়া বাসিন্দার থুইসাচিং মারমার (জদিরা) মেয়ে অংমেসিং (৩০) মারমা

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, গত সোমবার (২১ জানুয়ারি) কচ্ছপতলি পাড়ায় নিহত অংমেসিং মারমা তার দাদু মারা যাওয়াতে এসেছিলেন। ওই দিন রাত হয়ে গেলে লাপাইগয় পাড়া নিজ বাড়িতে না ফিরে কচ্ছপতলি বাপের বাড়িতে থাকেন।

সে দিন রাতে অনুমানিক সাড়ে ১০টা দিকে স্বামী ক্যনুঅং মারমা কচ্ছপতলি শ্বশুর বাড়িতে এসে স্ত্রী অংমেসিং মারমাকে নিজ বাড়িতে ডেকে নিয়ে যায়। এতে নিজ বাড়িতে পৌঁছালে স্ত্রী অংমেসিং মারমাকে খুন করেন। পরে নিহতের ঘাতক স্বামী নিজ স্ত্রী মারা যাওয়ার খবর পাড়াবাসিকে জানায়।

পাড়াবাসিরা অংমেসিং মারমা নিহতের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে জড়ো হয়ে রোয়াংছড়ি থানা পুলিশকে খবর দেন। নিহতের সংবাদ পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ঘাতক স্বামী ক্যনুঅং মারমাকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।

নিহতের বাবা থুইসাচিং মারমা অভিযোগ করে বলেন, বিনা কারণে আমার মেয়েকে আমাদের বাড়ি থেকে রাতে ডেকে নিয়ে ঘাতক স্বামী ক্যনুঅং মারমা খুন করেছে। তাই খুনি ক্যনুঅং মারমার কঠিন শাস্তি দাবি করেন।

রোয়াংছড়ি থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. শরিফুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, রাত প্রায় ১১টার দিকে খুনের ঘটনা সংবাদ পেয়ে আসামিকে আটক করে নিহতের লাশসহ থানায় নিয়ে আসা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, অংমেসিং মারমাকে খুন করা হয়েছে বলে নিহতদের পরিবার দাবি করছে। তবে নিহত ব্যক্তির গায়ে কোন রক্তক্ষরণ অবস্থায় পাওয়া যায়নি। বিস্তারিত ঘটনা তদন্তের পরে জানা যাবে।

এসময় ঘটনাস্থলে উপজেলা চেয়ারম্যান চহাইমং মারমা ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. রেজাউল করিম পরিদর্শন করেন। এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত কোন মামলা হয়নি।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: পুলিশ, রোয়াংছড়ি, হত্যা
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

20 − thirteen =

আরও পড়ুন