হোয়াইক্যংয়ে তুচ্ছ ঘটনার জের ধরে যুবক খুন, আটক ১

fec-image

টেকনাফের হোয়াইক্যংয়ে সামান্য ঘটনার জের ধরে প্রতিপক্ষের হামলায় এক যুবককে নির্মমভাবে খুন করা হয়েছে। নিহত যুবক হোয়াইক্যং মাঝের পাড়ার আব্দুল মোনাফের ছেলে আব্দুল্লাহ প্রকাশ বাবু (২৩) এ ঘটনায় একজন ঘাতক মো. হোসেনকে আটক করতে সক্ষম হন পুলিশ।

রবিবার (৩ মে) সন্ধ্যা ৬. ১৮টায় হোয়াইক্যং মাঝেরপাড়াস্থ বাবুর বাড়িতে হামলার ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, বিকেল সাড়ে ৪টায় হোয়াইক্যং বাজারের উদ্দেশে তুলাতুলি থেকে টমটম হয়ে আসছিলেন মোহাম্মদ আলমের ছেলে হেলাল। এ সময় তার টমটম চালক ও অপর সিএনজি চালক আব্দুল্লাহ প্রকাশ বাবুর সাথে দুষ্টুমিসূলভ আচরণ করেছিল। সামন্য এ আচরণের কারণে টমটমের যাত্রী হেলাল অকথ্য ভাষায় গালমন্দ করে। নিহত বাবু এর প্রতিবাদ করলে উভয়পক্ষ উত্তেজিত হয়ে পড়ে। এ ঘটনার সমাধান করে দেয় হোয়াইক্যং সিএনজি ও টমটম সমবায় সমিতির নেতৃবৃন্দ। এ সময় টমটম যাত্রী মদ্যপ অবস্থায় ছিলো বলে জানিয়েছে একাধিক ব্যক্তি।

এ ঘটনার জের ধরে ইফতারের দুই মিনিট আগে হেলালের নেতৃত্বে, তার ছোট ভাই মানিক, চাচাতো ভাই মিয়া, শালা রবিউল আলম’র বন্ধু মো. হোসেন সহ আরও কয়েকজন চিহ্নিত দূর্বৃত্তরা বাড়িতে গিয়ে আব্দুল্লাহ প্রকাশ বাবুকে নির্মমভাবে হত্যা করে পালিয়ে যায়। স্থানীয়রা এগিয়ে তাকে উদ্ধার করে এনজিও পরিচালিত হাসপাতাল এমএসএফে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

এ ব্যাপারে সিএনজি ও টমটম সমবায় সমিতির সভাপতি নুরুল আবছার জানান, দুইজনের হাতাহাতির একজন সামান্য আহত হলে, তাকে চিকিৎসা করতে বলা হয়। বিষয়টি পরে মিমাংসা করা হবে বলেও প্রাথমিক সমাধান দেয়া হয়। কিন্তু হেলাল গংরা তা অমান্য করে ইফতারের দুই মিনিট পূর্বে আব্দুল্লাহর বাড়িতে গিয়ে হামলা করে এবং সে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে।

এ ঘটনার খবর পেয়ে হোয়াইক্যং ফাঁড়ীর ইনচার্জ এসআই নাজমুল আলমের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে এবং সেই সাথে অভিযান চালিয়ে একজনকে আটক করতে সক্ষম হন। আটককৃত যুবক স্থানীয় সৈয়দ হোসেনের ছেলে মো. হোসেন।

এসআই নাজমুল আলম ঘটনাস্থল থেকে কুড়াল ও দা উদ্ধার করা হয়েছে জানিয়ে বলেন, তুচ্ছ ঘটনার জের ধরে আব্দুল্লাহ প্রকাশ বাবুকে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়। বাকিদের ধরতে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে। মৃতদেহ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ব্যাপারে মামলার প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: আটক, খুন, হোয়াইক্যংয়ে
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

13 − 6 =

আরও পড়ুন