৫০ বছর পর জিপিএ-৫, খুশি এলাকাবাসী

চিৎমরম উচ্চ বিদ্যালয়ের দরিদ্র সাদিয়া ইসলামের সফলতার গল্প

fec-image

রাঙ্গামাটি জেলার কাপ্তাই উপজেলার কর্ণফুলির কুল ঘেঁষে অবস্থিত ৩নং চিৎমরম ইউনিয়ন। ঐতিহাসিক বৌদ্ধ বিহারের জন্য এখানে রয়েছে সুখ্যাতি। এখানকার শিক্ষায় এগিয়ে যাবার লক্ষ্যে কিছু বিত্তবান ব্যক্তি ১৯৭০সালের ১লা জানিয়ারি চিৎমরম উচ্চ বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করেন।

প্রথমে শিক্ষা বোর্ড হতে ৮ম শ্রেণী পর্যন্ত পাঠদানের কার্যক্রম স্বীকৃতি থাকলেও পরবর্তীতে এটি মাধ্যমিক পরীক্ষা দেওয়ার অনুমতি মিলে। চিৎমরম উচ্চ বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার ৫০ বছর পর একটি খুশির সংবাদে আনন্দে আত্মহারা হয়েছে চিৎমরম উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক, শিক্ষার্থী, ম্যানেজিং কমিটি, অভিভাবক‘সহ সমগ্র চিৎমরমবাসী।

২০২০সালের প্রকাশিত এসএসসি পরীক্ষার ফলাফলে একজন সাদিয়া ইসলাম সকলের মূখ উজ্জ্বল করেছেন। চিৎমরম উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠার ৫০বছরের ইতিহাসে সাদিয়া ইসলাম প্রথম বারের মতো জিপিএ-৫ অর্জন করেছেন এই বিদ্যালয় হতে।

কে এই সাদিয়া ইসলাম:
চিৎমরম বাজারের একজন অসচ্ছল চায়ের দোকানদার সেকান্দর মিয়ার ১ছেলে ২মেয়ের মধ্যে সাদিয়া ইসলাম মেঝো মেয়ে। নূন আনতে যেখানে পানতা ফুরায় সেখানে পরিবারের বড়কর্তা সেকান্দর মিয়া এবং তার স্ত্রী ফরিদা খানম তিন ছেলে মেয়েকে শিক্ষার আলো থেকে বঞ্চিত করছেননি কখনো।

তার বড় ছেলে শহীদুল ইসলাম কর্ণফুলী সরকারি ডিগ্রী বলেজে স্নাতকে ১ম বর্ষে অধ্যায়নরত এবং ছোট মেয়ে সুমাইয়া ইসলাম চিৎমরম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ১ম শ্রেণীতে অধ্যায়নরত আছেন।

সাদিয়া ইসলামের মা ফরিদা খানম জানান, তার স্বামী ও দেবর মিলে চিৎমরম বাজারে ভাগাভাগি করে একটি চায়ের দোকান করেন। সারা বছর সংসারের টানাপোড়ন থাকলেও তিনি ছেলে-মেয়েদের লেখাপড়া থেকে বঞ্চিত করেননি।

অর্থের অভাবে বাড়তি প্রাইভেট টিউটর দিতে না পারলেও সাদিয়া পড়ালেখায় ছিলেন মনযোগী। তিনি তার সন্তানদেরকে অন্যান্য পরিবারের ছেলেমেয়েদের মতো বাড়তি চাহিদা পূরণ করতে পারেননি। এরপরও ছেলেমেয়েরা মূখ বুঝে চালিয়েছেন পড়ালেখা। তিনি চিৎমরম উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক এবং পরিচালনা কমিটির সকলের প্রতি তার মেয়ের সফলতার কৃতজ্ঞতা জানান।

চিৎমরম উচ্চ বিদ্যালয়ের পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান অংসুইছাইন চৌধুরী সাদিয়া ইসলামের এ সফলতায় আনন্দিত ও উচ্ছ্বসিত হয়ে জানান, সাদিয়া ইসলাম সমগ্র চিৎমরম বাসীর মূখ উজ্জ্বল করেছেন। তার ভবিষ্যৎ‘র পড়ালেখার জন্য যতরকম সহযোগিতা লাগবে সবটুকু প্রদানের আশ্বাস দেন তিনি। পাশাপাশি তাকে এমন সফলতার জন্য সংবর্ধণা প্রদান করা হবে বলে জানান তিনি।

চিৎমরম উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ক্যসুপ্রু মারমা‘সহ সকল শিক্ষকবৃন্দ সাদিয়া ইসলামের এমন অর্জিত ফলাফলের জন্য অভিনন্দন জানান এবং তার উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ কামনা করেন।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: কাপ্তাই, জিপিএ
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

2 × three =

আরও পড়ুন