জিম্মি করে মাছ ধরার বিষয়ে সংবাদ সম্মেলনে যা বললেন শ্রমিকরা

fec-image

শ্রমিকদের জিম্মি করে মাছ ধরছিলো প্রভাবশালী চক্র ’এমন শিরোনামে গত ২০ ফেব্রুয়ারি একটি সংবাদ প্রকাশ করা হয়। সংবাদটিকে ভুয়া আখ্যা দিয়ে সোমবার (২২ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে সংবাদে উল্লেখিত শ্রমিকরা রাঙামাটি শহরের একটি রেস্টুরেন্টে সংবাদ সন্মেলন করেছে।

লিখিত বক্তব্যে উক্ত শ্রমিকরা সংবাদটির তীব্র নিন্দা জানিয়ে বলেন, আমরা বিগত দুই মাস যাবৎ মৎস্য ব্যবসায়ী হেলাল উদ্দিনের অধীনে রাঙামাটির বালুখালী ইউনিয়নের সাপমারা পাহাড় এলাকায় কেচকি জাল টানার কাজে নিয়োজিত আছি। আমাদের মালিক নিয়মিত বেতন প্রদান করেন এবং খাবার-দাবার ঠিক মতো খাওয়ান।

আমাদের সওদাগরের সাথে ওই এলাকার নেজাম উদ্দিন ফকির ও তার ছেলে জয়নাল এর পূর্বের শত্রুতার জের ছিলো। সেই সুযোগে তারা বাবা-ছেলে মিলে ১৯ ফেব্রুয়ারি আমাদের কাছে এসে আমাদের মালিকের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করার পরিকল্পনার প্রস্তাব দেন। বিনিময়ে আমাদের নগদ টাকা প্রদান, নেশার ট্যাবলেট খাওয়ার ব্যবস্থা করে দিবেন বলে আশ্বস্ত করেন।

১৯ ফেব্রুয়ারীরি নিজাম উদ্দীন ফকির এবং তার ছেলে জয়নাল আমাদের নেশা জাতীয় ট্যাবলেট খাওয়ালে ২০ তারিখ স্থানীয় দু’য়েকজন সাংবাদিকদের সামনে আমাদের মালিকের বিরুদ্ধে উল্টা-পাল্টা এবং অসত্য তথ্য প্রদান করি। আমরা নেশার ঘোরে কি বলেছি জানা নেই। নেশার ঘোর কেটে যাওয়ায় বুঝতে পারলাম আমরা ভুল করেছি। এইজন্য আমরা আমাদের এমন বক্তব্য প্রত্যাহার করছি এবং স্থানীয় আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কাছে এ ব্যাপারে জবানবন্দিও দিয়েছি।

তারা লিখিত বক্তব্যে আরো বলেন, আমাদের মালিক অত্যন্ত ভাল মানুষ। আমরা এই মালিকের অধীনে অনেকবার কাজ করেছি। আমরা ছুটি নিয়ে অনেকবার বাড়িতে গিয়েছিলাম। আবার ছুটি কাটিয়ে কাজে যোগ দিয়েছি। তিনি নিয়মিত বেতন-ভাতা পরিশোধ করেন। আমরা যে কোন জায়গায় আমাদের এ বক্তব্য প্রদান করতে পারবো।

সংবাদ সন্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন- মৎস্য শ্রমিক মো. জিসান। এসময় মৎস্য শ্রমিক এরশাদ, রুবেল, নাছির, রহিম, ফরিদ এবং রাকিব উপস্থিত ছিলেন।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

one × five =

আরও পড়ুন