থানচিতে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে মুরগি খামার পুড়ে ছাই

fec-image

বান্দরবানে থানচিতে এক ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে পোল্ট্রি মুরগির খামার পুড়ে ছাই হয়ে গিয়েছে। রবিবার (২৪ জুলাই) দুপুর পৌনে ২টার দিকে থানচি হেডম্যান পাড়া পাশ্ববর্তী পোল্ট্রি খামারে এই অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে।

অগ্নিকাণ্ডের খবর পেয়ে স্থানীয়রা ও ফায়ার সার্ভিসের ২টি ইউনিট অগ্নি নির্বাপণ যন্ত্র ব্যবহার করে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন। বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে আগুনে সূত্রপাত হয়েছে বলে ধারণা করছেন প্রত্যক্ষদর্শী ও ফায়ার কর্মীরা। অগ্নিকাণ্ডের প্রায় আড়াই লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে হয়েছে বলে জানা যায়।

পোল্ট্রি খামারের মালিক স্বপন আসাম জানান, বৃষ্টিতে বাসায় ঘুমিয়ে ছিলাম, এমন সময় মুরগি খামারে আগুন দেখতে পায়। হেডম্যান পাড়ার প্রতিবেশীদের খবর দিই। পরে আগুনের তাপ বেশি থাকায় স্থানীয় ফায়ার সার্ভিসের খবর দিলে ফায়ার কর্মীরা এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন।

তিনি আরও জানান, গত ৬ বছর আগেই বয়লা মুরগী ও ডেইরি ফার্ম করার লক্ষ্যে আমি লামা উপজেলা হতে অত্র থানচি হেডম্যান পাড়া বাসিন্দা হ্লাফসু হেডম্যানের ছোট ভাই নিকট জমি বর্গা নিয়ে। বর্গা জমিতে শাক সবজি, বয়লা মুরগী, ডেইরি দুধ বিক্রি করে ভালো অবস্থায় ছিলাম। কিন্তু ২০২০ সালে কোভিড-১৯ পরিস্থিতে কিছু লোকসান হয়েছে। লোকসান কাটি উঠতে ২০২২ সালে শুরুতে ২ হাজার বয়লা মুরগিতে রানিক্ষেত নামক রোগাক্রান্ত হয়ে সব মুরগী মারা গেছে। গত মাসের ধকল কাটিয়ে উঠে খামার করার জন্য ঘর নতুন করে মেরামত করে রেখেছিলাম। বর্ষা মৌসুম শেষ হলে নতুন করে বয়লার মুরগির বাচ্চা আনবো কিন্তু তা হল না আগুনে সব কেড়ে নিয়েছে।

থানচি ফায়ার সার্ভিসের লিডার তরুণ বড়ুয়া বলেন, দুপুর আড়াইটা দিকে খবর পেয়ে আমরা দুই ইউনিটের মোট ৯ জন ফায়ার কর্মী আগুনের নিয়ন্ত্রণে আনি। প্রবল বৃষ্টির সময় আশেপাশে কোন আগুন জ্বালানো সম্ভব নয়। বিদ্যুৎ শর্ট সার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাঠ হতে পারে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করছি।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: অগ্নিকাণ্ড, থানচি
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

five − 2 =

আরও পড়ুন