থানচি উপজেলা নির্বাচন কার্যালয়ের কর্মকর্তাদের অনুপস্থিত থাকার অভিযোগ

fec-image

বান্দরবানে থানচিতে উপজেলা নির্বাচন কার্যালয়ে কর্মকর্তা দীর্ঘ দিন ধরে অনুপস্থিত থাকার অভিযোগ উঠেছে। রুমা উপজেলা জনবল দিয়ে কোনমতে কাজ চালাচ্ছেন তারা। তবে নির্বাচন কার্যালয়ের কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা সেবা প্রদান প্রতিশ্রুতি ( সিটিজেন চার্টার) সম্পর্কে জানেন না। প্রতিনিয়ত সেবা গ্রহীতাদের কর্মকর্তা নেই অজুহাতে হয়রানি করে চলছে। জনগুরুত্বপূর্ণ জাতীয় পরিচয় পত্র (এনআইডি) সংগ্রহ, সংশোধন ও হারানো জাতীয় পরিচয় পত্র ফেরত পেতে রীতি মতো হিমশিম খেতে হচ্ছে স্থানীয় বাসিন্দাদের। আবার সাধারণ জনগণের সাথে কর্মচারীদের অসদাচরণ অভিযোগ পাওয়া যায়।

উপজেলা নির্বাচন কার্যালয়ের সূত্রে জানা যায়, ২০১৬-২০১৭ সাল থেকে থানচি উপজেলায় দোতলা বিশিষ্ট নিজস্ব ভবনে কার্যক্রম শুরু করে উপজেলা নির্বাচন কার্যালয়। কার্যক্রম শুরুর পর থেকে নির্বাচন কার্যালয়ের কর্মকর্তা কর্মচারীদের টানা অনুপস্থিতি যেনো নিয়মে পরিণত হয়েছে। যার ফলশ্রুতিতে ,সেবা গ্রহীতারা সঠিক সময়ে সেবা না পেয়ে প্রতিনিয়ত বিভিন্ন বিড়ম্বনার শিকার হচ্ছে। এই বিষয়ে কেউ প্রতিবাদ করতে গেলে পড়তে হচ্ছে বেকায়দায়।

সরজমিনে উপজেলা নির্বাচন অফিসে গেলে দেখা মেলে ২ জন কর্মচারীর। কর্মকর্তা দীর্ঘদিন যাবত কর্মস্থলে অনুপস্থিত। সরকার কর্তৃক বাধ্যতামূলকভাবে দপ্তরে কী কী সেবা প্রদান করা হয় তার তথ্য সম্বলিত সিটিজেন চার্টার বাইরে দেয়া থাকার বিধান থাকলেও নির্বাচন কার্যালয়ের মেলেনি এর কোনো অস্তিত্ব ।

বিগত ২ মাস আগে এম এল শর্মা, এসটিএনও টাইপিস্ট ও আসাদুজ্জামান রাসেল আইডিয়া প্রকল্পের অধীনে ডাটা এন্ট্রি অপারেট পদে অফিসে যোগদান করেন। এম এল শর্মা সাংবাদিকদের দেখে কম্পিউটার নিয়ে ব্যস্ত হয়ে পড়েন। ১ মিনিটের জন্যেও কথা বলার ফুরসত নেই তার। অফিসের কার্যক্রমের বিষয়ে প্রায় আধা ঘন্টা যাবত তার সাথে কথা বলতে চাইলে তিনি শুধু প্রচণ্ড বিরক্তি নিয়ে বলেন,‘অফিসের কার্যক্রম সম্পর্কে আমার কিছু জানা নেই, যে সব বিষয় জানতে চান, জেলা তে যোগাযোগ করুন।’

ডাটা এন্ট্রি অপারেটর আসাদুজ্জামান রাসেলের সাথে কথা হলো তিনি অত্যন্ত বিনয়ের সঙ্গে বলেন, ‘আসলে আমি তো সবে নতুন এসেছি তাই আপনাদের চিনতে পারেনি’

সাধারণ মানুষের অভিযোগের বিষয়ে ডাটা এন্ট্রি অপারেটর আসাদুজ্জামান রাসেল বলেন, আমাদের কর্মকর্তা দীর্ঘদিন কর্মস্থলে অনুপস্থিত থাকায় কাজ কিছু টা ব্যাহত হচ্ছে। তার কাছে বিগত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন, উপজেলা নির্বাচন, সংসদ নির্বাচন সহ বিভিন্ন নির্বাচনের ফলাফলের তালিকা চাইলে তিনি বলেন, ওগুলো সব সংশ্লিষ্ট রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে থাকে, আমাদের কাছে থাকেনা।

কার্যালয়ের সেবা নিতে আসা উপজেলার তিন্দু ইউনিয়নের বাসিন্দা অংথোয়াইচিং বলেন, আমার এনআইডি কার্ডের সংশোধনীর জন্য আমি মাসের পর মাস নির্বাচনী কর্মকর্তার অফিসে চক্কর কাটছি, কিন্তু কাজের কাজ কিছুই হচ্ছে না, ‘একটা সামান্য কাজের জন্য আমার অবস্থা একেবারে কাহিল।’

সামগ্রিক বিষয়ে থানচি উপজেলা নির্বাচনী কর্মকর্তা (অতিরিক্ত দায়িত্ব) তরুণ কুমার চাকমা’র সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, সিটিজেন চার্টার লাগানোর প্রক্রিয়া খুব তাড়াতাড়ি শুরু হবে। জাতীয় পরিচয় পত্র নিয়ে নাগরিক ভোগান্তির বিষয়টি তিনি পুরোপুরি এড়িয়ে যান তিনি।

নির্বাচনের ফলাফলের তালিকা চাইলে তিনি বলেন, ওগুলো সব জেলা অফিসে, আমাদের কাছে কোনো ডকুমেন্টস সংগ্রহে নেই।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

eight + 12 =

আরও পড়ুন