দীঘিনালায় অজ্ঞান করে অটোরিক্সা ছিনতাই

fec-image

দীঘিনালায় অজ্ঞান করে অটোরিক্সা ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটেছে। অজ্ঞান হওয়া যুবকের নাম মো. মনির হোসেন (৩০)। সে উপজেলার বাচা মেরুং এলাকার মো. নেকবর আলীর ছেলে। বুধবার উপজেলার থানা বাজার এলাকার খেলার মাঠে এ ঘটনা ঘটে। এসময় অজ্ঞান যুবকের স্মার্ট ফোন এবং অটোরিক্সা নিয়ে পালিয়ে যায় ছিনতাইকারীরা।

জানাযায়,  বুধবার দুপুরে অজ্ঞাত দুই যুবক মনির হোসেনের অটোরিক্সা ভাড়া করে। তারা প্রথমে মোবাইল টাওয়ারে কাজের কথা বলে মেরুং এলাকায় যায়। পরে সেখান থেকে তারা আবার অটোরিক্সা নিয়ে দীঘিনালা থানা বাজারে আসে পরবর্তীতে পার্শ্ববর্তী খেলার মাঠে গিয়ে নাস্তা করে। এসম মনির হোসেনকে দুটি মিষ্টি খাওয়ায়। পরে মনির হোসেন পুরোপুরি অজ্ঞান হলে অটোরিক্সা এবং মুঠোফোন নিয়ে পালিয়ে যায় ছিনতাইকারীরা। পরে অজ্ঞান মনির হোসেনকে উদ্ধার করে দীঘিনালা স্বাস্থ কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন মনির হোসেন জানান, দুপুরে দুইজন লোক মোবাইল টাওয়ারে কাজ করার কথা বলে অটোরিক্সা ভাড়া করে। তারা প্রথমে মেরুং এলাকার মোবাইল টাওয়ারে কাজ করে। পরে আবার তারা দীঘিনালায় আসে। থানা বাজারের পাশে খেলার মাঠে নাস্তা করার পর আমি কখন অজ্ঞান হই জানিনা, আর কিছুই বলতে পারিনা।

এব্যাপারে দীঘিনালা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডাক্তার আবু নাসের মোহাম্মদ জোবায়ের জানান, সাধারণত ঘুমের ওষুধ খাইয়ে এসব করা হয়। মনির হোসেনের ক্ষেত্রেও একই। বর্তমানে সে পর্যবেক্ষণে আছে।

দীঘিনালা থানার অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) মো. ইলিয়াছ হোসেন অজ্ঞান করে অটোরিক্সা ছিনতাইয়ের ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, এখনো কেহ মামলা করেনি। মামলা হলে তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: অজ্ঞান, অটোরিক্সা ছিনতাই, দীঘিনালায়
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

2 × two =

আরও পড়ুন