নন্দীপাড়া ট্রাজেডিঃ একসঙ্গে একই পরিবারের তিন জনের জানাজা!

fec-image

কুতুবদিয়ার উত্তর ধূরুং ইউনিয়নের ২ নং ওয়ার্ডের আজিম উদ্দিন সিকদার পাড়ার গিয়াস উদ্দিন প্রকাশ ভেন্ডার গিয়াস উদ্দিন সিকদার গত ২২ সেপ্টেম্বর মারা যান। তাঁর মৃত্যুর ৩২দিন পরে ৪০ দিনের ফাতেহা গত শনিবারে (২৪ অক্টোবর) নিজ বাড়িতে সম্পন্ন হয়।

পিতার ফাতিহা অনুষ্ঠান সম্পন্ন করে বাড়ির আনুসাঙ্গিক কাজ শেষে সোমবার (২৬ অক্টোবর) দুপুরে ভগ্নিপতি আক্কাস উদ্দিনের বাসার উদ্দেশ্যে সঙ্গে যাত্রা করেন আমিনুল কবির ও সোনিয়া আক্তার।

মগনামাঘাট থেকে চকরিয়া বাস স্টেশনে যাওয়ার জন্য সিএনজি ভাড়া করেন। তাদের বহনকারী সিএনজিটি পেকুয়ার মেহেরনামা পেরিয়ে নন্দীপাড়া স্টেশনে পৌঁছলেই দুর্ঘটনায় পতিত হয়। বিপরীত দিক থেকে আসা একটি ট্রাক আকস্মিক সিএনজিকে ধাক্কা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই আমিনুল কবির (৩২) মারা যান। আক্কাস উদ্দিনকে (৩৮) গুরুতর অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে নেয়া হলে সেখানে তিনিও মৃত্যুবরণ করেন।

আরেক যাত্রী সোনিয়াকে (১৬) গুরুতর অবস্থায় চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। চিকিৎসারত অবস্থায় তিনিও সোমবার (২৬ অক্টোবর) দিবাগত রাত পৌনে ১ টার দিকে না ফেরার দেশে পাড়ি জমান।

একটি সড়ক দুর্ঘটনায় এভাবে একে একে তিনটি প্রাণ ঝরে গেল। ঘটনার পরে পুরো দ্বীপে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। মরহুম ভেন্ডার গিয়াস উদ্দিন সিকদারের ১ম পুত্র আমিনুল কবির চট্টগ্রাম কাস্টম অফিসে কর্মরত ছিলেন।

আক্কাস উদ্দিন ছিলেন মরহুম আমিনুল কবিরের দুলাভাই। তিনি কক্সবাজারে কনস্ট্রাকশনের কাজ করতেন। সোনিয়া আক্তার (১৬) আক্কাস উদ্দিনের ১ম কন্যা, মরহুম ভেন্ডার গিয়াস উদ্দিন সিকদার ও মাস্টার ছৈয়দুল আলমের বড় নাতনি।

মঙ্গলবার (২৭ অক্টোবর) সকাল ১১ টায় একসঙ্গে একই পরিবারের তিনজনের নামাজে জানাযা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: কুতুবদিয়া, জানাজা, নন্দীপাড়া
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

thirteen − four =

আরও পড়ুন