প্রথাগত বিচার ব্যবস্থা এগিয়ে নিতে সব সম্প্রদায়ের কাছে যেতে হবে: পার্বত্যমন্ত্রী

fec-image

পার্বত্য চট্টগ্রামের প্রথাগত বিচার ব্যবস্থাকে শক্তিশালীকরণ সংক্রান্ত দিনব্যপী সংলাপ অনুষ্ঠিত হয়েছে বান্দরবানে। শনিবার (৩০ নভেম্বর) বান্দরবান শহরের অরুন সারকি মিলনায়তনে গ্রাম আদালত সক্রিয়করণ (২য় পর্যায়) প্রকল্পের আওয়তায় ইউএনডিপি এই সংলাপ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। অনুষ্ঠানে পার্বত্য চট্টগ্রামের প্রথাগত আইন ও তার প্রয়োগবিধির যুগোপযোগীকরণ বিষয়ে মতামত দেন জেলার আইনজীবি, বিভিন্ন উপজেলার জনপ্রতিনিধি, হেডম্যান-কারবারীসহ এনজিও প্রতিনিধিবৃন্দ।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি বলেছেন- দেশের সংবিধানকে লক্ষ্য রেখে সার্কেল (রাজা), আঞ্চলিক পরিষদ, জেলা পরিষদ, জেলা প্রশাসন এ কয়েকটি প্রতিষ্ঠান মিলে কিভাবে প্রথাগত স্বীকৃত আনা যায় সে বিষয়ে আরো বেশি আলাপ-আলোচনা করতে হবে। কারণ একজন হেডম্যানের মৌজায় বিভিন্ন সম্প্রদায়ের মানুষ বসবাস করে। এসব সম্প্রদায় সম্পর্কেও হেডম্যানদের ধারণা থাকতে হবে।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে পার্বত্যমন্ত্রী আরো বলেন- প্রথাগত রীতি নীতি প্রয়োগ করে আমাদের এই এলাকার ঐতিহ্য ধরে রাখার সমন্বয় যারা করছেন তাদেরকে সব সম্প্রদায়ের মানুষের কাছে যাওয়ার পরামর্শ দেন তিনি। প্রথাগত বিচার ব্যবস্থা কার্যকর করা গেলে জুডিসিয়াল বিচার ব্যবস্থার অনেক চাপ কমবে বলে মনে করেন তিনি।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক মো: দাউদুল ইসলাম, বান্দরবান জেলা ও দায়রা জজ মোহাম্মদ ইসমাইল, বান্দরবান সেনা রিজিয়নের জিটু মেজর ইফতেখার হাসান, জেলা পরিষদের মূখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা এ টি এম কাউসার হোসেন, ইউএনডিরি প্রজেক্ট ম্যানেজার প্রসেনজিত চাকমা, বান্দরবান জেলা ম্যানেজার খুশি রায় ত্রিপুরা

উল্লেখ্য, ২০১৬ সালের জানুয়ারীতে শুরু হওয়া এই প্রকল্প আগামী বছর পর্যন্ত চলবে। পার্বত্য চট্টগ্রামের ২৬টি উপজেলার ১২১ ইউনিয়নের আনুমানিক ২১ মিলিয়ন গ্রামীণ নারী, দরিদ্র ও বিপদাপন্ন জনগোষ্ঠী উপকারভোগী হিসেবে নির্বাচিত করা হয়েছে এই প্রকল্পের জন্য।

আয়োজকরা জানান- ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের অর্থায়নে সুবিধাবঞ্চিত ও প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর বিচার ব্যবস্থায় প্রবেশাধিকার নিশ্চিতকরণে অবদান রাখার উদ্দেশ্যে এই প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: ইউএনডিপি, পার্বত্য চট্টগ্রাম, সংলাপ
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

fourteen − eight =

আরও পড়ুন