বৈশাখী পূর্ণিমা উপলক্ষে বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা ও চাকমা ভাষার ভ্রাম্যমাণ কর্মসূচি

fec-image

“বুদ্ধ ধর্ম সংঘ” এই তিনটি প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে ত্রি-স্মৃতি বিজড়িত শুভ মহান বৈশাখী পূর্ণিমা উদযাপন উপলক্ষে ফ্রি চিকিৎসা সেবা কর্মসূচি ও চাকমা জাতির বর্ণমালা পরিচয় ও মাতৃভাষা শিক্ষার ভ্রাম্যমাণ কর্মসূচি কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শুক্রবার (১৩মে) দুপুরে পানছড়ি উপজেলার জ্যোতির্ময় কার্বারী (তালতলী) পাড়ায় আর্য্যমিত্র বৌদ্ধ বিহারের এ কর্মসূচির আয়োজন করা হয়।

এ সময় আর্য্যমিত্র বৌদ্ধ বিহারের বিহারাধ্যক্ষ ভদন্ত সুদর্শী স্থবিরের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদের অন্যতম সদস্য শতরুপা চাকমা।

এ কর্মসূচি উপলক্ষে প্রধান অতিথির বক্তব্যে শতরুপা চাকমা বলেন, আজ এখানকার গরীব মানুষ বিনামূল্যে চিকিৎসা গ্রহণ করে, ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী ঔষধ সেবন করবে। সুস্থ্য ও সবল জীবন করবে। আমরা গরীব ও অসহায় মানুষের জন্য সাধ্যমতো সর্বদা সহযোগিতা করে থাকি। এই ধারা ভবিষ্যতেও অব্যাহত থাকবে।

তিনি আরও বলেন,বুদ্ধদেবের মতে মানুষের দুঃখ-কষ্টের মূল কারণ হলো অজ্ঞতা ও আসক্তি। অজ্ঞতা বা জ্ঞানের অভাবহেতু এবং পার্থিব বস্তুর ওপর আসক্তির ফলে মানুষের পুনর্জন্মেও দুঃখকষ্টের শেষ হয় না। মানুষ নিজ কর্মফল অনুসারে বারবার জন্ম লাভ করে এবং কৃতকর্মের ফল ভোগ করে। সুতরাং ‘নির্বাণলাভ’ বা পুনর্জন্ম থেকে নিষ্কৃতি লাভই মানুষের প্রধান এবং চরম উদ্দেশ্য হওয়া প্রয়োজন। সৎকর্মের দ্বারা জ্ঞান অর্জন করে আত্মার উন্নতিসাধন করলেই এই নির্বাণ লাভ সম্ভব। তৃষার অবসান এবং আত্মার উন্নতি সাধনের জন্য বুদ্ধদেব ‘অষ্টাঙ্গিক মার্গের নির্দেশ দিয়েছেন। সৎ সংকল্প, সৎ বাক্য, সৎ কর্ম, সৎ চেষ্টা, সং স্মৃতি, সম্যক দৃষ্টি, সৎ জীবন ও সম্যক সমাধি।

এ সময় বিহারে বিভিন্ন এলাকা থেকে আসা প্রায় কয়েক’শ নারী, পুরুষ, শিশু, গর্ভবর্তী ও বয়স্করা বিশেষজ্ঞ ডাক্তার দেখিয়ে প্রেসক্রিপশনের মাধ্যমে বিভিন্ন রোগের ঔষধ প্রদান করা হয়। দিনব্যাপী এ বিনামূল্যে রোগীদের ডাক্তার দেখানো ও ফ্রি ঔষধ বিতরণ করা হয়। এ চিকিৎসা সেবা কর্মসূচি উপলক্ষে বিনামূল্যে হৃদরোগ, মেডিসিন, ব্রেইন ও স্নায়ুরোগ মাথা ব্যথা, স্ট্রোক, প্যারালাইসিস ও খিঁচুনি, গাইনি ও শিশুরোগসহ বিভিন্ন রোগের চিকিৎসা সেবা প্রদান করা হয়।

এছাড়াও চিকিৎসা সেবা ও উপদেশ প্রদান, বিনামূল্যে ডায়াবেটিস পরীক্ষা এবং রোগীদের ফলোআপ ভিজিট করা হয়।যেখান অংশগ্রহণ করেছেন খাগড়াছড়ি সদর হাসপাতালের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক ও নার্স। বিনামূল্যে বিভিন্ন রোগের ঔষধ পাওয়ায় ও বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক দেখাতে পেরে শত শত অসহায় ও হত দরিদ্র মানুষেরা খুশিতেই বাড়ি ফিরে যায়।

সেবা নেয়ার পরে রিনা চাকমা নামে একজন রোগী জানান, আমরা আজ এখানে বিনামূল্যে চিকিৎসা করতে পেরে খুবই খুশি। টাকা পয়সার অভাবে আমরা ডাক্তারের কাছে গিয়ে চিকিৎসা করতে পারিনি। আজ এখান থেকে বিনামূল্যে চিকিৎসা ও ঔষুধ পেয়েছি। আমরা আয়োজকদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি।

এ সময় বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা টিমের নেতৃত্বে ছিলেন খাগড়াছড়ি সদর হাসপাতালের আবাসিক অফিসার ডা.রিপল বাপ্পি চাকমা, ডা.অর্ণব চাকমা,ডা.দীপা ত্রিপুরা,কমলছড়ি আম্রকানন বৌদ্ধ বিহারের ভান্তে সুমনালংকার মহাথের,খবংপড়িয়া দশবল বৌদ্ধ বিহারের অধ্যক্ষ ও সাবেক পার্বত্য ভিক্ষু সংঘের সভাপতি অগ্রজ্যোতি মহাথের প্রমুখ।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

18 − two =

আরও পড়ুন