মাটিরাঙ্গায় করোনা আতঙ্কেও বাজার থেকে গ্রামে ছুটে চলেছেন ইউএনও

fec-image

প্রাণঘাতি করোনাভাইরাস এর প্রার্দুভাব ঠেকাতে সরকারের সাধারণ ছুটি ঘোষণার মধ্যে যখন উপজেলার বিভিন্ন বিভাগীয় কর্মকর্তা-কর্মচারীরা অনেকেই হোম কোয়ারেন্টাইনে, তখন করোনা দুর্যোগে সহযোগিতায় মাটিরাঙ্গার এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে ছুটে চলছেন মাটিরাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) বিভীষণ কান্তি দাশ।

সরকারি ছুটিতে সাধারণ মানুষ যখন বিপাকে পড়েছে আর কর্মহীন হয়ে পড়েছে শ্রমজীবি মানুষ তখন গত তিন দিন ধরে চালসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় পন্য পৌঁছে দিতে ছুটছেন দুর্গম পাহাড়ের এক গ্রাম থেকে আররক গ্রামের সাধারণ মানুষের দ্বারে দ্বারে।

আবার কখনো এক বাজার থেকে অন্য বাজারে ছুটছেন নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের মুল্য নিয়ন্ত্রণে রাখতে। পরিচালনা করছেন ভ্রাম্যমান আদালত। অবিরাম ছুটে চলেছেন সামাজিক দুরত্ব নিশ্চিত করতে।

মাটিরাঙ্গায় চালের মুল্য যখন সাধারণ মানুষের ক্রয় ক্ষমতার বাহিরে তখন মাটিরাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) বিভীষণ কান্তি দাশ ন্যায্যমুল্যে চাল ববিক্রির উদ্যোগ গ্রহণ করেন। তার আহ্বানে সাড়া দিয়ে স্থানীয় দুই খাদ্যশষ্য ব্যাবসায়ী মাটিরাঙ্গা ও গোমতি বাজারে গত এক সপ্তাহ ধরে ৩০টাকা দরে চাল বিক্রি হচ্ছে।

করোনাভাইরাস প্রতিরোধে জনসচেতনতা সৃষ্টিতে কাজ করছেন গ্রাম থেকে ইউনিয়ন পর্যন্ত। শুধুমাত্র পরিবার নয়, মাটিরাঙ্গার প্রতিটি মানুষের সুরক্ষা নিশ্চিত করাই যেন এ কর্মকর্তার সবর্বোচ্চ প্রচেষ্টা। ইতোমধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রশংসা কুঁড়িয়েছেন মাটিরাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) বিভীষণ কান্তি দাশ।

মাটিরাঙ্গা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. রফিকুল ইসলাম, সহকারী কমিশনার (ভুমি) ফারজানা আক্তার ববি, মাটিরাঙ্গা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এম. হুমায়ুন মোরশেদ খান, মাটিরাঙ্গা উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা রাজকুমার শীল, মাটিরাঙ্গা উপজেলা শিক্ষা অফিসার মো. মনিরুজ্জামান, উপজেলা রিসোর্স ইনস্ট্রাক্টর আসগর হোসেন ও মাটিরাঙ্গা সদর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান হিরনজয় ত্রিপুরাকে তার সাথে বিভিন্ন কর্মকাণ্ডে অংশগ্রহণ করতে গেছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে মাটিরাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) বিভীষণ কান্তি দাশ বলেন, জাতির এ দুর্যোগে নিজেকে ঘরে আটকে ( হোম কোয়ারেন্টাইনে) রাখার সুযোগ নেই মন্তব্য করে বলেন, সরকারের নির্দেশনার বাইরেও মানবিক দায়িত্ব থেকেই আমি কাজ করার চেষ্টা করছি।

শেষ পর্যন্ত নিজের সবটুকু উজাড় করে মাটিরাঙ্গার জনসাধারণের পাশে থাকার প্রত্যয় ব্যক্ত করে বিভীষণ কান্তি দাশ বলেন, আমি আমার চেতনা থেকে ঘর থেকে মাঠে নেমেছি। অন্যদেরও উচিত জাতির এ দুর্যোগে সুপ্ত চেতনাকে জাগ্রত করা।

নিজেকে আর পরিবারকে সুরক্ষা করতে সকলকে ঘরে থাকার পরামর্শ দিয়ে মাটিরাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) বিভীষণ কান্তি দাশ বলেন, করোনা মোকাবেলায় আপনারা ঘরে থাকুন খাবার পৌঁছে দেবে প্রশাসন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বাংলাদেশে কেউ অভুক্ত থাকবে না।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: ইউএনও, করোনাভাইরাস, মাটিরাঙ্গা
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ten − 3 =

আরও পড়ুন