মানিকছড়িতে কিশোরীকে কুপিয়ে হত্যা

fec-image

খাগড়াছড়ি জেলার মানিকছড়ি উপজেলার গরমছড়ি গদিচন্দ্র পাড়ায় জীবন মালা ওরফে রুমি ত্রিপুরা (১৮) নামের এক কিশোরীকে নির্মমভাবে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। হত্যার পর তার মরদেহ মাটিতে পুঁতে ফেলা হয়।

রোববার (১৭ জুলাই) সকাল আনুমানিক ১০টার দিকে এ ঘটনা ঘটায় প্রতিবেশী বুদক্তি ত্রিপুরা (৩০)।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার ৩ নম্বর যোগ্যাছোলা ইউনিয়নের ৮নম্বর গরমছড়ি ওয়ার্ডের গদিচন্দ্র পাড়ার মৃত রশীরাম ত্রিপুরার  ছেটো মেয়ে জীবনমালা ওরফে রুমি ত্রিপুরা (১৮)কে প্রতিবেশী বুদক্তি ত্রিপুরা (৩০) স্বামী-পূর্ণ কুমার ত্রিপুরা উঠান থেকে রুমি ত্রিপুরাকে ডেকে নিয়ে ধারালো অস্ত্র (দা) দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে। পরে মাথার চুল ও রক্তাক্ত কাপড় আলাদা করে মরদেহ বাড়ির পাশে পুঁতে রাখে। পুলিশ ঘটনাস্থল গিয়ে বিকেল সাড়ে ৪টায় লাশ উদ্ধার করে। এ ঘটনায় প্রতিবেশী নারী বুদক্তি ত্রিপুরা (৩০) কে পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদ করার জন্য থানায় নিয়ে এসেছে।

নিহতের মা সুজিরং ত্রিপুরা বলেন, সকালে আমি দুই মেয়েকে বাড়িতে রেখে পানি আনতে পাহাড়ের নিচে যাই, এ সময় বুদক্তি আমার মেয়েকে ডেকে নিয়ে চুল ধরে মাটিতে ফেলে প্রকাশ্যে কুপিয়ে হত্যা করে! আমি এই অমানবিক হত্যাকাণ্ডের বিচার চাই।

থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ শাহনূর আলম নির্মম হত্যাকাণ্ডের শিকার কিশোরীর মরদেহ উদ্ধারের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, এই হত্যাকাণ্ডের জড়িত প্রতিবেশী বুদক্তি ত্রিপুরা (৩০) নামের নারীকে পুলিশ হেফাজতে আনা হয়েছে। এ বিষয়ে আইনগত পরবর্তী প্রক্রিয়া চলমান।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

eight − eight =

আরও পড়ুন