হেডফোন ব্যবহারে যেসব সমস্যা হতে পারে

fec-image

বর্তমানে হেডফোন ছাড়া আমাদের এক মুহূর্তও যেন চলে না। গান শোনা, কথা বলা, ভিডিও কল, অনলাইন মিটিংসহ নানা কাজে চাই হেডফোন। যানজটের দীর্ঘ লাইনেও সঙ্গী হয় বস্তুটি। তবে এর যেমন উপকারিতা আছে; তেমনই আছে অপকারিতাও। আসুন জেনে নিই সেসব সম্পর্কে—

দীর্ঘসময় কানে হেডফোন গুঁজে রাখলে কানে দাগ ও ব্যথা হতে পারে। তবে কানের ওপর চাপ কমাতে হেডফোনের কভার নরম রাখার চেষ্টা করা যেতে পারে। মোটরসাইকেল, ব্যক্তিগত গাড়ি চালানো বা রাস্তা পারাপারের সময় হেডফোন ব্যবহার হুমকির কারণ। এমসয় হেডফোন না ব্যবহার করে সাবধানে চলাচল করা উচিত। এতে সড়ক দুর্ঘটনার ঝুঁকি কমবে। এছাড়াও অতিরিক্ত হেডফোন ব্যবহারের ফলে শ্রবণশক্তি নষ্ট হতে পারে।

তবে হেড ব্যবহারে অপকারিতার পাশাপাশি কিছু উপকারিতাও আছে সেগুলো সম্পর্কে কিছুটা ধারণা নেওয়া যাক:

দীর্ঘ বিরক্তিকর সময় খুব সহজেই পার করতে হেডফোনের জুড়ি নেই। অন্যকে বিরক্ত না করে বিভিন্ন ধরনের ভিডিও দেখতে হলেও দরকার এ ব্স্তুটি। ভ্রমণের সময় হাত আটকে থাকলে হেডফোন ব্যবহার করা যায়। কাজের ফাঁকে ফাঁকে গান শুনতে তরুণদের পছন্দের শীর্ষে রয়েছে বস্তুটি। প্রচণ্ড ভীড়ে স্পষ্টভাবে কথা বলতে অনেকাংশেই সাহায্য করে এটি।

সতর্কতা
বাজারে বিভিন্ন দামের হেডফোন পাবেন। তবে কানে এবং ফোনে অ্যাডজাস্ট হচ্ছে কি না, তা দেখে নেবেন। কম দামি হেডফোন ব্যবহার না করাই ভালো। এর এয়ারবাডগুলো কানে ব্যথার কারণ হতে পারে। হেডফোন ব্যবহারের কারণে কানে কোনো সমস্যা হলে দ্রুত চিকিৎসকের কাছে যান।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

11 + 19 =

আরও পড়ুন