আশুলিয়ায় গণধর্ষণের শিকার মারমা গৃহবধূ; আটক ১

fec-image

আশুলিয়ায় এক মারমা গৃহবধূ গণধর্ষণের শিকার হয়েছেন। এ ঘটনায় রবিবার (১৮ আগস্ট) সকালে আশুলিয়ার ডেন্ডাবর এলাকার নতুনপাড়া থেকে রনি (২১) নামে একজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তাকে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

এর আগে গত মঙ্গলবার ওই এলাকার মঈন উদ্দিনের বাড়িতে এই গণধর্ষণের ঘটনা ঘটে। ওই গৃহবধূর স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে পাঠানো হয়েছে।

এ ঘটনায় করা মামলায় অভিযুক্তরা হলো- পাবনা জেলার আটঘরিয়া থানার পাইকপাড়া গ্রামের মন্টু মিয়ার ছেলে রনি (২১), ডেন্ডাবর এলাকার স্থায়ী বাসিন্দা খোরশেদ আলম খোকনের ছেলে জয় (২২) ও ফরিদপুর জেলার শামীম (২৬)। অভিযুক্ত রনি এবং শামীম ডেন্ডাবর এলাকায় বাসা ভাড়া করে থাকতেন।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার অভিযুক্ত তিনজন অবৈধভাবে মদ তৈরির অভিযোগ তুলে ভুক্তভোগী মারমা দম্পতির ঘরে ঢোকে ২ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে। চাঁদা দিতে অস্বীকার করলে গৃহবধূর স্বামীকে মারধর ও বাসায় ভাঙচুর করে। পরে তারা ওই গৃহবধূর স্বামীকে পাশের কক্ষে আটকে রাখে গৃহবধূকে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। এ সময় তারা ওই গৃহবধূর গলায় থাকা স্বর্ণের চেইনসহ নগদ পায় ১০ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয়।

এ ঘটনায় গত শনিবার রাতে তিনজনের নাম উল্লেখ করে আশুলিয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করে ভুক্তভোগী ওই মারমা গৃহবধূ।

আশুলিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ রিজাউল হক দিপু জানান, মারমা গৃহবধূকে দলবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনায় ইতিমধ্যেই রনি নামে এক আসামিকে গ্রেপ্তার করে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। বাকিদের গ্রেপ্তারের জন্য অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

fourteen − thirteen =

আরও পড়ুন