‘ইন্টারনেটের অপব্যবহার করছেন ৬০ শতাংশ তরুণ’

fec-image

আগামী তরুণ প্রজন্মকে প্রযুক্তির অপব্যবহার থেকে রক্ষার আহ্বান জানিয়েছে গ্রাহক অধিকার নিয়ে সোচ্চার সংগঠন বাংলাদেশ মুঠোফোন গ্রাহক অ্যাসোসিয়েশন। বিশ্ব যুব দিবস উপলক্ষে শনিবার (১৩ আগস্ট) গণমাধ্যমে পাঠানো এক বার্তায় এমন আহ্বান জানায় সংগঠনটি।

পাঠানো বার্তায় বলা হয়, দেশে এখন তরুণ প্রজন্মের মধ্যে প্রায় চার কোটি ইন্টারনেট ও প্রযুক্তি ব্যবহারকারী। বিভিন্ন জরিপ থেকে প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে আমরা জেনেছি এ প্রযুক্তি ব্যবহারকারীদের মধ্যে তরুণ প্রজন্ম প্রায় ৬০ শতাংশ ইন্টারনেটের অপব্যবহার করছে। আমরাও বিভিন্ন স্কুল-কলেজ পরিদর্শনের মাধ্যমে শিক্ষক এবং শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলে দেখেছি বর্তমান শিক্ষার্থীদের লেখাপড়ায় মনোযোগ নেই। শিক্ষার মান দিন দিন কমে যাচ্ছে।

যারা এইচএসসি প্রথম বর্ষে ভর্তি হয়ে প্রথম সেমিস্টার পরীক্ষা দিয়েছে তাদের প্রায় ৮০ শতাংশ উত্তীর্ণ হতে পারেনি। এমন ফলাফলের জন্য শিক্ষার্থীদের মুঠোফোনে আসক্ত হওয়ার সবচাইতে বড় কারণ বলে জানিয়েছে শিক্ষকরা। করোনা মহামারীর মধ্যে দুই বছর শিক্ষার্থীদের আমরা ঘরে বসে অনলাইনে ক্লাস ও পরীক্ষায় অংশ নিতে বাধ্য করেছি। অভিভাবকরা তার সন্তানকে হ্যান্ডসেট, ল্যাপটপ বা ট্যাব কিনে দিতে বাধ্য হয়েছে। লেখাপড়ার পাশাপাশি এ কোমলমতি তরুণ প্রজন্ম অনলাইন জুয়ায় আসক্ত হয়ে পড়েছে। টিকটকে তরুণ প্রজন্মের মৃত্যুর সংবাদ আমরা সবাই জানি।

টেলিযোগাযোগ, ইন্টারনেট সেবা, প্রযুক্তির সহজলভ্যতা ও মান বাড়াতে আমরা যখন সোচ্চার হচ্ছি ঠিক তখন দুঃখের সঙ্গে আমরা লক্ষ্য করছি ইন্টারনেট ও প্রযুক্তির অপব্যবহার হচ্ছে সবচেয়ে বেশি। যেখানে সরকার এবং আমরাও ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণের জন্য সবাইকে প্রযুক্তির ব্যবহারের আহ্বান জানাচ্ছি ঠিক এর বিপরীতমুখী অবস্থায় রয়েছে আমাদের বর্তমান তরুণ প্রজন্ম।

দ্রুত তরুণ প্রজন্মকে প্রযুক্তির সঠিক ব্যবহারে ফিরিয়ে আনতে না পারলে বাংলাদেশের জন্য ভয়াবহ পরিস্থিতি অপেক্ষা করছে। আমরা সরকারের প্রতি অনুরোধ জানাবো আইসিটি মন্ত্রণালয় প্রতিনিয়ত উদ্যোক্তা তৈরির বড় বড় কর্মসূচি পালন করে। কিন্তু প্রযুক্তির অপব্যবহার রোধে তাদের কোনো কার্যক্রম নেই। এমনকি নিয়ন্ত্রক সংস্থা বা টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকেও বা অপারেটরদের পক্ষ থেকেও কোনো ভূমিকা নেই।

আমাদের সংগঠনের সামর্থের ঘাটতি থাকায় আমরা নিজেরাও ব্যাপকভাবে ভূমিকা পালন করতে পারছি না। এ পরিস্থিতি উত্তরণের জন্য সরকারকেই দায়িত্ব নিয়ে এগিয়ে আসতে হবে। আমরা প্রযুক্তি উপদেষ্টার দৃষ্টি আকর্ষণ করছি। কীভাবে প্রযুক্তির অপব্যবহার থেকে রক্ষা পেতে পারি সে দিকনির্দেশনা দেবেন।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

12 − 11 =

আরও পড়ুন