উখিয়ায় জাতীয় ক্রাইম রিপোটার্স সোসাইটির সেক্রেটারি আটক

fec-image

কখনো সাংবাদিক, কখনো মানবাধিকারকর্মী আবার কখনো এনজিওকর্মী পরিচয় দিয়ে বিভিন্ন লোকজনের নিকট থেকে অর্থ হাতিয়ে নেওয়ার সময় হাতে-নাতে আটক হয়েছেন জাতীয় ক্রাইম রিপোটার্স সোসাইটির সেক্রেটারি নামধারী রহিম উল্লাহ (৩০) নামের এক যুবক। সে হলদিয়া পালং ইউনিয়নের দক্ষিণ ক্লাসপাড়া হাফেজ আবুল হোসেনের ছেলে। স্থানীয় লোকজনের অভিযোগের ভিত্তিতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তাকে আটক করেছে। বুধবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

এব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বলেন, স্থানীয় লোকজনের নিকট বিভিন্ন পরিচয় দিয়ে টাকা উত্তোলন করে জন উপদ্রব সৃষ্টির চেষ্টা করলে লোকজন আমাকে খবর দেয়, আমি ঘটনাস্থল মরিচ্যা থেকে তাকে হাতে-নাতে আটক করে ১ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করা হয়েছে।

উখিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) নুরুল ইসলাম মজুমদার বলেন, ধৃত রহিম উল্লাহ বিভিন্ন সময় থানায় এসে জাতীয় ক্রাইম রিপোটার্স সোসাইটির সেক্রেটারি পরিচয় দেন। আমি তাকে তখন থেকে সন্দেহ করে আসছিল। ঠিক একই ভাবে পরিচয় দিয়ে বিভিন্ন লোকজনের নিকট থেকে টাকা হাতিয়ে নেওয়ার সময় ধরা পড়েন।

এদিকে ধৃত রহিম উল্লাহ স্বীকারোক্তিতে জানান, সে জাতীয় ক্রাইম রিপোটার্স সোসাইটির সেক্রেটারি। উক্ত কমিটির সভাপতি হচ্ছেন রত্নাপালং ইউনিয়নের রুহুল্লারঢেবা এলাকা জাহাঙ্গীর আলম, সহ-সভাপতি হচ্ছেন-কোটবাজার এলাকার একেএম মোজাম্মল হক, রাজাপালং ইউনিয়নের হিজলিয়া এলাকার মো. রাশেল হচ্ছেন যুগ্ম সম্পাদক, প্রচার সম্পাদক জুয়েলসহ ১৬জন এই কমিটির সদস্য বলে দাবি করেন।

মরিচ্যা এলাকার চৌকিদার মাহাবুব জানায়, ধৃত রহিম উল্লাহ দীর্ঘদিন ধরে এলাকার সহজ-সরল লোকজনের নিকট থেকে বিভিন্ন পরিচয় ও হুমকি-ধমকি দিয়ে টাকা উত্তোলন করে আসছিল। সম্প্রতি বিভিন্ন লোভ দেখিয়ে ক্রাইম সোসাইটির সদস্য হিসেবে অন্তর্ভুক্তের কথা বলে তার এলাকার প্রায় ৪৫জন ছেলের নিকট থেকে ১৫০টাকা চাঁদা উত্তোলন করে পকেটস্থ করেছে। তাদের অভিযোগের ভিত্তিতে ইউএনও তাকে আটক করেন বলে সে জানিয়েছেন।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: আটক, উখিয়ায়
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

three × 3 =

আরও পড়ুন