বাইশারীতে কিন্ডার গার্ডেন শিক্ষার্থীদের দুর্ভোগ চরমে

fec-image

বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার বাইশারী ইউনিয়নের দুর্গম জনপদের অসহায় ঝরে পড়া শিক্ষার্থীদের একমাত্র শিক্ষা প্রতিষ্ঠান দারল ইহসান কিন্ডার একাডেমী।  গত কিছুদিন যাবত নতুন করে সরকারী ভাবে রাস্তা নির্মাণ হওয়ায় একাডেমীতে যাবার পথটি পুরোপুরিভাবে বন্ধ হয়ে গেছে। এতে শিক্ষার্থীদের চরম দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। শিক্ষার্থীদের হামাগুড়ি দিয়ে রাস্তা পার হতে হয়।

সরজমিনে দেখা যায় ইউনিয়নের বটতলী বাজার সংলগ্ন গর্জন ছড়ার পাশে জামে মসজিদসহ একাডেমীর অবস্থান। ছড়ার উপর ব্রীজ নির্মাণ করায় নতুন করে রাস্তাটি তৈরী হয়। এতে মসজিদ ও একাডেমীর চলাচল পথ বিলুপ্ত হয়ে যায় এবং প্রতিষ্ঠান থেকে রাস্তা অনেক উচু হওয়ার ফলে শিক্ষার্থী ও মুসল্লীদের যাতায়তে সীমাহীন দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।

একাডেমীর প্রধান শিক্ষক (ভারপ্রাপ্ত) সাজেদা আক্তার জানান পথ বন্ধ হওয়ায় গত কয়েকদিনে অনেক ছাত্র ছাত্রী আহত হয়েছে। তিনি এখন শংকিত।কারন সকলেই শিশু।

সভাপতি বাবুল হোসেন জানান রাস্তাটি বন্দ হওয়ার ফলে অভিভাবকেরা তাদের সন্তান নিয়ে উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছে। তিনি বিষয়টি স্থানীয় ইউপি সদস্যসহ কমিটিকে জানান।

দুর্গম জনপদের প্রতিষ্ঠানটি ২০১২ সালে প্রতিষ্ঠার পর থেকে সুনামের সাথে চলছে। প্রতি বছর সমাপনি পরিক্ষায় শতভাগ পাশসহ ভালো ফল করছে প্রতিষ্ঠানটি। খেলাধুলা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানেও এ প্রতিষ্ঠানটি এগিয়ে রয়েছে বলে জানালেন সিনিয়র শিক্ষক আবদুল মাবুদ। প্রায় পৌনে দুই শতাদিক ছাত্র ছাত্রী রয়েছে এই কিন্ডারগার্ডেনে।

বটতলী বাজার সভাপতি বেলাল উদ্দিন জানান, প্রত্যন্ত এলাকায় প্রতিষ্ঠানটি শিশুদের জন্য অনেক গুরুত্ববহন করে। বর্তমানে পথটি নির্মাণের জন্য সরকারের হস্তক্ষেপ কামনা করেন তিনি।

স্থানীয় ইউপি সদস্য আবদুর রহিম বলেন তিনি কমিটির পক্ষ থেকে মৌখিক অভিযোগ পাওয়ার পর সরজমিনে ঘটনাস্থলে গিয়ে বিষয়টি উপজেলা প্রকৌশলীকে অবহিত করেছেন।

এ বিষয়ে উপজেলা প্রকৌশলী তোফাজ্জল হোসেন ভূইয়ার সাথে মুঠোফোনে কথা হলে তিনি জানান, বিষয়টি তার নলেজে রয়েছে। অবশ্যই শিক্ষার্থী ও মুসল্লিদের জন্য রাস্তার ব্যবস্থাসহ পাকা সিড়ি নির্মাণের ব্যবস্থা করে দেওয়া হবে।

একাডেমী পরিচালনা কমিটি ও মসজিদ কমিটির সদস্য এবং স্থানীয়রা যাতায়াতের পথটি নির্মাণের দাবী জানান।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

twelve − 11 =

আরও পড়ুন