বাইশারীতে বোমা বিষ্ফোরণে পুলিশ সদস্য আহতর ঘটনায় পুলিশ সুপারের ঘটনাস্থল পরিদর্শন

01 (1)

বাইশারী (নাইক্ষ্যংছড়ি) প্রতিনিধি:

পার্বত্য জেলা বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার বাইশারীতে পুঁতে রাখা বোমার বিষ্ফোরনে পুলিশ সদস্য আহতর ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন প্রশাসনের উর্দ্ধতন কর্মকর্তারা। বৃহস্পতিবার দুপুর ১টা ৩০মিনিটের সময় বান্দরবান জেলা পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান ও নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এ সময় তারা জব্দকৃত আলমত গুলো পরীক্ষা করে দেখেন।

এছাড়া সরকারের বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার কর্মকর্তরা ঘটনাস্থল পরিদর্শনসহ তথ্য অনুসন্ধান চালিয়ে যাচ্ছেন। তবে এখন পর্যন্ত ঘটনার সাথে জড়িত সন্দেহে কাউকে আটক করা যায়নি।

এ ঘটনায় স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মনিরুল হক বলেন, বাইশারী বাজার একটি জনগুরুত্ব এলাকা এবং বাইশারী এলাকায় অবস্থিত পাহাড়ী-বাঙ্গালী সকলে সম্প্রীতির বন্ধনে আবদ্ধ। একটি অস্থিতিশীল পরিস্থিতির সৃষ্টি করতে সন্ত্রাসীরা এ ঘটনা ঘটিয়েছে বলে ধারণা করছেন।

অন্যদিকে, আহত পুলিশ সদস্য বাইশারী তদন্ত কেন্দ্রের কনস্টেবল মাকসুদুর রহমান (২৪) বলে জানা গেছে। আহত পুলিশ সদস্যকে বাইশারী বাজারে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে অবস্থার অবনতি ঘটায় রাত ১২টার দিকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। বর্তমানে তিনি আশঙ্কা মুক্ত বলে পুলিশ জানায়।

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী এএসআই সোলাইমান ভূঁইয়া জানান, বুধবার রাত আনুমানিক ৮.৪০ মিনিটের সময় তিনি সহ আরো ৩ পুলিশ সদস্য সড়কের পাশের দোকানে রাস্তার উপর লাগানো চেয়ারে বসে চা পান করছিলেন। হঠাৎ বিকট শব্দে তারা আতঙ্কিত হয়ে পড়েন। পরক্ষণে এক পুলিশ সদস্যকে নিচে পড়ে থাকতে দেখে তাকে মাটি থেকে উদ্ধার করে স্থানীয় ক্নিনিকে নিয়ে যান। তার ডান পায়ের তালুর উপরি ভাগ ক্ষত হয়ে মাংস ছিড়ে যায় বলে জানান।

ফলোআপ

সে সময় বাজারের লোকজন আতংকিত অবস্থায় দিগ্বিদিক ছুটাছুটি করছিল। এরপর পরই স্থানীয় জনতা ও পুলিশ সদস্যরা ঘটনাস্থলে একখানা বিদ্যুৎতের তার দেখতে পেয়ে অনুসন্ধানে আরো লম্বা ৩০ ফুট তারের সাথে ব্যাটারী সংযোগ স্থাপন করা দুইটি তারের সন্ধান পায়। এতে পুলিশ প্রাথমিক ভাবে ধারণা করেছেন কোন সন্ত্রাসী গ্রুপ এ ঘটনা ঘটাতে পারে।

উক্ত ঘটনার পরপরই নাইক্ষ্যংছড়ি থানা অফিসার ইনচার্জ আবুল খায়ের ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন এবং ঘটনাস্থল থেকে বোমার আঘাতে ভাংচুর হওয়া চেয়ার, ধংস হওয়া বিস্ফোরকের আলামত জব্দ করেন।

নাইক্ষ্যংছড়ি থানা অফিসার ইনচার্জ আবুল খায়ের জানান, পুতে রাখা বস্তুটি বিস্ফোরক দ্রব্য। অবশ্যই তদন্ত করে ঘটনার সাথে সংশ্লিষ্টদের খুজে বের করা হবে।

এই রিপোর্ট পাঠানো পর্যন্ত ঘটনাস্থল পুলিশ বিজিবির নিরাপত্তা বেষ্টনীর মধ্যে রয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

4 × 4 =

আরও পড়ুন