বাইশারীতে ভূমি দখল ও রাবার গাছ কেটে ফেলার অভিযোগ

fec-image

বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার বাইশারীতে রাতের আঁধারে ভূমি জবর দখলের চেষ্টা ও উৎপাদনযোগ্য ৪৫টি রাবার গাছ কেটে ফেলার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

মঙ্গলবার (১৫ নভেম্বর) উপজেলার বাইশারী ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ড ছাগল খাইয়া এলাকার ১১নং সিটের ১২৫২০নং প্লটের পিএইচপি লেটেক্স এন্ড রাবার প্রোডাক্ট লিমিটেডের নিজস্ব জায়গায় এ ঘটনা ঘটে।

এনিয়ে পিএইচপি রাবার বাগানের সহকারী ম্যানাজার মো. ইউনুচ খান বাদী হয়ে একই ইউনিয়নের মধ্যম বাইশারী গ্রামের নুরুল হাকিমের ছেলে ছালেহ নুর করিম রিপন সহ ৩ জনের নাম উল্লেখ করে এবং অজ্ঞাত নামা আরো ৭ থেকে ৮ জনের বিরুদ্ধে ১৬ নভেম্বর অভিযোগ দায়ের করে।

অভিযোগের প্রেক্ষিতে বৃহস্পতিবার (১৭ নভেম্বর) সকাল ১০টায় নাইক্ষ্যংছড়ি থানার এসআই ধীমান বড়ুয়া সংগীয় ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

প্রাথমিক তদন্তে তিনি ৪৫টি উৎপাদনযোগ্য রাবার গাছ ও ভূমি জবর দখলের সত্যতা পেয়েছেন বলে জানান। তবে কে বা কারা এঘটনা ঘটিয়েছে তাহা নিশ্চিত হতে পারেনি। তিনি বলেন, বিষয়টি নিয়ে উভয় পক্ষকে ঐ জায়গায় যেতে নিষেধসহ শান্তি-শৃঙ্খলা বজায় রাখার জন্য নির্দেশ প্রদান করেন।

পিএইচপি ল্যাটেক্স এন্ড রাবার প্রোডাক্ট লিমিটেডের সহকারী ম্যানাজার ইউনুছ খানের লিখিত অভিযোগে জানা যায়, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের পক্ষে জেলা প্রশাসক বান্দরবান পার্বত্য জেলা হতে চুক্তি পত্র অনুযায়ী ১৯৯৩-১৯৯৪ সালে সিট নং ১১ প্লট নং ১২৫২০ মূলে ২৫ একর জায়গা লিজ প্রাপ্ত হয়। সে থেকে পিএইচপি ল্যাটেক্স এন্ড রাবার প্রোডাক্ট লিমিটেডের পক্ষ থেকে রাবার বাগানসহ বিভিন্ন প্রজাতির গাছপালা সৃজন করে ভোগ দখলে রয়েছে। কিন্ত বিবাদী তার দলবলসহ দেশীয় অস্ত্রের মহড়া দিয়ে রাতের আধাঁরে ৪ একর ৫০ শতক জায়গা জবর দখলের চেষ্টা ও ঘর নির্মাণের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। ঐ সময় খবর পেয়ে বাইশারী তদন্ত কেন্দ্রের পুলিশ নিয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছালে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে গেলে ও বিবাদী ছালেহ নুর করিম পুলিশ ও পিএইচপি সহকারী ম্যানাজার ইউনুস খানসহ সকলকে অকথ্য ভাষায় গাল মন্দ এবং ইউনুছকে কেটে টুকরো টুকরো করার হুমকি প্রদান করে।

লিখিত অভিযোগে আরও উল্লেখ করা হয়েছে গত ১৫ নভেম্বর প্রতিদিনের ন্যায় বাগানের কাজ শেষে রাত ১০টায় বাগানের লোকজন বাড়ি ফেরার পরদিন আবার সকালে বাগানে এসে দেখতে পাই উৎপাদন যোগ্য রাবার গাছ কেটে ফেলে এবং পরদিন ১৭ নভেম্বর আবারও ২৫টি উৎপাদনযোগ্য রাবার গাছ কেটে ফেলে এবং বিভিন্ন জিনিসপত্র ভাংচুর চালায়। যার ক্ষতির পরিমাণ প্রায় ১০ লাখ টাকা। অভিযোগকারী ইউনুছ খানের দাবি উক্ত ঘটনা বিবাদী ছালেহ নুর করিমসহ অভিযোগে উল্লেখিত অজ্ঞাত নামা লোকজন ঘটিয়েছে।

এবিষয়ে বিবাদী ছালেহ নুর করিমের সাথে সরাসরি কথা হলে তিনি জানান, অভিযোগের বিষয়টি সত্য নয়। আমাকে ফাঁসানোর জন্য এসব কিছু করা হয়েছে। তিনি আরো বলেন, আমিও নাইক্ষংছড়ি থানায় অভিযোগ দায়ের করেছি। তবে ছালেহ নুর করিমের পিতা মো. নুরুল হাকিম এই প্রতিবেদককে জানিয়েছেন, তিনি বিষয়টি নিয়ে সমাধানের পক্ষে।

সরেজমিনে এলাকাবাসী ও বাগান মালিকদের সাথে কথা বলে জানা যায়, দীর্ঘ বছর যাবত পিএইচপি ল্যাটেক্স এন্ড রাবার প্রোডাক্ট লিমিটেডের দখলে রয়েছে। তাছাড়া উক্ত জায়গায় ইতিপূর্বে আকাশ মনি বাগান ছিল। গত বছর বাগানটি কেটে পুনরায় নতুন বাগান সৃজনের সময় হঠাৎ রাতের আঁধারে ভূমি জবরদখল করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছিল অভিযুক্ত ছালেহ নুর করিম।

পিএইচপি রাবার প্রোডাক্ট লিমিটেডের সহকারী ম্যানাজার সাংবাদিকদের জানান, বিবাদী ছালেহ নুর করিম আমাকেসহ বাগানে কর্মরত অনেককে প্রকাশ্যে হুমকি প্রদান করছে। তাই আমরা এবিষয়ে আইনি সহয়তা চাই।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: বাইশারী, ভূমি, রাবার
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

13 + seven =

আরও পড়ুন