রাঙ্গামাটিতে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশে করেছে পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি

DSCN0914

আলমগীর মানিক, রাঙ্গামাটি:

খাগড়াছড়ির মাটিরাঙ্গায় পাহাড়ীদের বাড়ী ঘরে হামলা ও অগ্নি-সংযোগের প্রতিবাদে রাঙ্গামাটিতে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি । আজ সোমবার রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসন কার্যালয়ের সামনে জনসংহতি সমিতির নেতাকমীরা আয়োজিত মাটিরাঙার ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়ে বিভিন্ন ব্যানার ও ফেস্টুন নিয়ে মানববন্ধনে অংশ নেয়। পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির সহ সভাপতি উষাতন তালুকদারের সভাপতিত্বে রাঙ্গামাটি ডেপুটি কমিশনারের কার্যালয়ে সামনে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে বক্তব্য প্রদান করেন জনসংহতি সমিতির রাঙ্গামাটি জেলা শাখার সভাপতি গুণেন্দু বিকাশ চাকমা ও পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের সহ সাধারণ সম্পাদক টোয়েন চাকমা।

মানববন্ধন পরিচালনা করেন জনসংহতি সমিতির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের ছাত্র বিষয়ক স্টাফ সদস্য উদয়ন ত্রিপুরা এবং স্মারকলিপি পাঠ করেন জনসংহতি সমিতির সহ তথ্য ও প্রচার সম্পাদক সজীব চাকমা। বক্তব্যে উষাতন তালুকদার বলেন যে, বিজিবি ও পুলিশের সামনে এই হামলা সংঘটিত হয়েছে বলে জানা গেছে। তা যদি সত্য হয়ে থাকে তাহলে এটা অত্যন্ত দু:খজনক ও উদ্বেগজনক বলে তিনি জানান। সরকার যদি গণতান্ত্রিক ও ধর্মনিরপেক্ষ হয়, তাহলে এই জঘন্য সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে যথাযথ পদক্ষেপ নিতে এগিয়ে আসতে হবে। বক্তারা বলেন, পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী আক্রান্ত জুম্ম পরিবারসমূহকে যদিও ক্ষতিপূরণ ও পুনর্বাসনের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন, কিন্তু আজ পর্যন্ত মাত্র দুটো গ্রামে রেশন দেয়া হয়েছে বলে বক্তারা ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

বক্তারা অভিযোগ করে বলেন, সরকারের পক্ষ থেকে বার বার আক্রান্ত জুম্মদের জানমালের নিরাপত্তার আশ্বাস দেয়া হয়, কিন্তু সেই আশ্বাস বাস্তবায়ন করা হয় না। কিছু স্বার্থান্বেষী গোষ্ঠী সন্ত্রাসী কার্যকলাপে জড়িত থাকতে পারে, কিন্তু সাধারণ জুম্ম জনগণের উপর এ ধরনের সংঘবদ্ধ হামলা হয় কেন? সরকার কেন সাধারণ নিরীহ জুম্মদের নিরাপত্তায় এগিয়ে আসে না বলে তিনি প্রশ্ন করেন। বক্তারা অভিযোগ করেন, কিছু কায়েমী সুবিধাবাদী মহল সাধারণ মানুষকে উস্কানী দিয়ে এধরনের হীন কর্মকান্ড সংঘটিত করে থাকে। পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তি বাস্তবায়ন ও আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির স্বার্থে সাম্প্রদায়িক উস্কানীদাতা সন্ত্রাসী কার্যকলাপে জড়িত ইউপিডিএফের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ নিতে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী, প্রশাসনসহ সরকারকে আহ্বান জানান বক্তাগণ। পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তি বাস্তবায়নে সরকারের ব্যর্থতার কারণে এ ধরনের সাম্প্রদায়িক কার্যকলাপ সংঘটিত হচ্ছে উল্লেখ করে সরকারকে পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তি বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে কেবল প্রতিশ্রুতির মধ্যে না থেকে প্রকৃত বাস্তবায়নে এগিয়ে আসার আহ্বান জানানো হয়েছে বক্তাদের পক্ষ থেকে।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

3 + ten =

আরও পড়ুন