চকরিয়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় একই পরিবারের ৫ ভাই নিহত, আহত ৩

fec-image

দশদিন আগে মারা যাওয়া বাবার শ্রাদ্ধকর্ম ও পুঁজো শেষে বাড়ি ফেরার পথে কক্সবাজার-চট্টগ্রাম মহাসড়কের চকরিয়ায় দ্রুতগামী একটি পিকআপ গাড়ির চাপায় মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায় একই পরিবারের ৫ ভাই নিহত হয়েছে। এসময় আরও ৩ জন নারী-পুরুষ আহত হয়। হাইওয়ে পুলিশ ও স্থানীয় লোকজন হতাহতদের ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করেছে।

মঙ্গলবার (৮ ফেব্রুয়ারি) ভোর ৫ টার দিকে চকরিয়া উপজেলার ডুলহাজার ইউনিয়নস্থ মালুমঘাট স্টেশনের উত্তর পাশে হতাহতের এ ঘটনা ঘটে।

সড়ক দুর্ঘটনায় নিহতরা হলেন, চকরিয়া উপজেলার ডুলহাজার ইউনিয়নের মালুমঘাটস্থ রিংভং এলাকার মৃত সুরেশ শীলের ছেলে শরণ শীল (৪৫), তার ভাই চম্পক শীল (৩০), নিরুপম শীল (৪০), দীপক শীল (৩৫), প্লাবন শীল (২২)। এছাড়াও সড়ক দুর্ঘটনায় আহতরা হলেন, রক্তিম শীল (৩০), তার বোন হীরা শীল (৪২) ও মুন্নি (৩০)। দুর্ঘটনায় হতাহতরা সবাই ভাই-বোন ও একই পরিবারের সদস্য। দশদিন আগে মারা যাওয়া বাবার শ্রাদ্ধকর্ম শেষে বাড়ি ফেরার সময় রাস্তা পার হতে গিয়ে তারা এ দুর্ঘটনার কবলে পড়েন।

হাইওয়ে পুলিশ ও স্থানীয় লোকজন জানিয়েছে, মঙ্গলবার ভোর পাঁচটার দিকে উপজেলার ডুলাহাজারা ইউনিয়নের ছগিরশাহ কাটা এলাকার মৃত সুরেশ চন্দ্র শীলের ৭ ছেলে ২ মেয়েসহ পরিবারের ৯ জন সদস্য তাদের মৃত বাবার শ্রাদ্ধকর্ম ও পারিবারিক পুঁজো দিতে যান। পুঁজো দিয়ে ফেরার পথে কক্সবাজার মহাসড়ক পার হওয়ার সময় মালুমঘাট স্টেশনের উত্তর পাশে কক্সবাজার অভিমুখে একটি দ্রুতগামী পিকআপ গাড়ি চাপা দিলে ঘটনাস্থলে গুরুতর আহত হয় শরণ শীল, তার ভাই চম্পক শীল, নিরুপম শীল, দীপক শীল, প্লাবন শীল ও তাদের অপর তিন ভাই-বোন। পরে ঘটনাস্থল থেকে হতাহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করে। এ ঘটনায় অন্যান্য আহতদের চকরিয়া ও কক্সবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ঘটনার পরে দ্রুত গতিতে ঘাতক পিকআপটি পালিয়ে যাওয়ায় জব্দ করা সম্ভব হয়নি।

ডুলাহাজারা ইউনিয়নের নব-নির্বাচিত চেয়ারম্যান হাসানুল ইসলাম আদর জানান, সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৫ সহোদরের সৎকার করার জন্য ডুলাহাজারা ইউনিয়ন পরিষদের পক্ষথেকে সব ধরণের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে।

মালুমঘাট হাইওয়ে পুলিশের ইনচার্জ (পুলিশ পরিদর্শক) শাফায়েত হোসেন সড়ক দুর্ঘটনায় নিহতের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, ডুলাহাজারা ছগিরশাহ কাটা এলাকার মৃত সুরেশ চন্দ্র শীলের ৯ জন ছেলে-মেয়ে তাদের বাবার শ্রাদ্ধকর্ম ও পারিবারিক পুঁজো দিতে যান। পুঁজো দিয়ে ফেরার পথে মালুমঘাটস্থ মহাসড়ক পার হওয়ার সময় দ্রুতগামী একটি পিকআপ গাড়ির চাপায় তারা সবাই গুরুতর আহত হয়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে তাদের উদ্ধার করে স্থানীয় মেমোরিয়াল খ্রীষ্টান হাসপাতালে নেয়া হলে তৎমধ্যে ৫ সহোদকে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষনা করেন।

তিনি আরও বলেন,পুলিশ ঘাতক পিকআপটি জব্দ ও চালককে আটক করার জন্য চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। এ ঘটনায় আইনগত প্রদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে বলে তিনি জানান।

চকরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মুহাম্মদ ওসমান গনি বলেন, সড়ক দুর্ঘটনার ঘটনাটি সত্যিই বড়ই মর্মান্তিক। নিহত ৫ জনই একই পরিবারের সদস্য এবং তারা পরস্পর সহোদর। এছাড়াও অপর আহত যেই ৩ জন রয়েছে তারাও পরস্পর ভাই-বোন।

এদিকে, সড়ক দুর্ঘটনায় একই পরিবারের ৫ সহোদর নিহত ও তিন ভাই-বোন আহত হওয়ার ঘটনার সংবাদ পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জেপি দেওয়ান। তিনি নিহত পরিবারের শোকাহতদের সহানুভূতি জানিয়ে দু:খ প্রকাশ করেন। ইউএনও জেপি দেওয়ান বলেন, সড়ক দুর্ঘটনার এই ঘটনাটি বড়ই বেদনাদায়ক। হতাহতরা সবাই সূর্য উঠার পূর্বে তাদের বাবার শ্রাদ্ধকর্ম ও আনুষ্ঠানিকতা শেষে বাড়ি ফিরছিল। মহাসড়ক পারাপারের সময় মূলত তারা দুর্ঘটনার শিকার হয়। নিহতের পরিবারকে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষথেকে প্রতি পরিবারকে ২৫ হাজার টাকা করে অনুদান দেয়া হবে বলে তিনি জানিয়েছেন।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

seven + 12 =

আরও পড়ুন