ঈদগাঁওতে একই রাতে ৬ গরু লুট,পুলিশের ভূমিকা নিয়ে জনমনে প্রশ্ন!

fec-image

কক্সবাজার সদরের ঈদগাঁওতে ফের একই রাতে ৬টি গরু লুটের ঘটনা ঘটেছে।

বুধবার (১৩ মে) রাত ২টার দিকে ঈদগাঁও ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ড লাল শরিয়া পাড়ায় পৃথক এ গরু লুটের ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, সংঘবদ্ধ অস্ত্রধারী লুটের দল উক্ত এলাকার মৃত রশিদ আহমদের গোয়াল ঘরে থেকে ২টি, গুরা মিয়ার ৩ টি এবং খুরশেদ আলমের ১টি গরু লুট করে নিয়ে যায়।

রাতে লুটের দলের এলাকায় প্রবেশের সময় এক মাছ শিকারী দেখে ফেলায় তাকে হাত-পা বেঁধে ক্ষেতের মধ্যে ফেলে রাখে।

ক্ষতিগ্রস্ত গরু মালিক গুরা মিয়া জানান, লুটকৃত ৬টি গরুর আনুমানিক মূল্য তিন লক্ষাধিক টাকা হতে পারে। ভুক্তভোগী এসব পরিবারে চরম হতাশা বিরাজ করছে।

এদিকে এ বিষয়ে ঈদগাঁও তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ (পরিদর্শক) আসাদুজ্জামান রিপোর্ট লিখা পর্যন্ত অবগত নয় এবং কেউ অভিযোগ দিলে তদন্ত সাপেক্ষে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান।

স্থানীয় মেম্বার মহসিন ও মহিলা মেম্বার জান্নাতুল ফেরদৌস গরু লুটের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এদিকে সচেতন এলাকাবাসীর প্রশ্ন করোনায় দেশ জুড়ে লকডাউন চলাকালে কিভাবে লুট কৃত গরু নিয়ে লুটেরা দলের মহাসড়ক দিয়ে গাড়ি যোগে নিরাপদে চলাচল করে তা নিয়ে রহস্যের অন্ত নেই।

তবে কি মহাসড়কে রাতে দায়িত্বরত পুলিশ প্রশাসনের সদস্যদের সাথে লুটেরা দলের যোগাসাজশ রয়েছে! নয়ত নিয়মিত মহাসড়ক দিয়ে লুটকৃত গরু নিয়ে অপরাধীরা চলাচলের পরও কেন একবারও প্রশাসনের হাতে আটক হয়না?

করোনার দুঃসহ এসময়ে জনগণের সম্পদ রক্ষায় এ অপরাধীদের অবিলম্বে আটক করতে প্রশাসনের জরুরি হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: কক্সবাজার, গরু, পুলিশ
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

20 + eleven =

আরও পড়ুন