চকরিয়ায় দীর্ঘদিনের ভোগদখলীয় জায়গায় স্থাপনা নির্মাণে বাঁধা: ভাংচুর ও হুমকি

fec-image

কক্সবাজারের চকরিয়ায় দীর্ঘদিনের ভোগদখলীয় ও পৈত্রিক জায়গায় স্থাপনা নির্মাণ কাজে বাঁধা দিয়ে হুমকি প্রদর্শনের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে যেকোন মুহুর্তে এলাকায় বড় ধরণের রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশঙ্কা করেছেন স্থানীয় এলাকাবাসী।

রবিবার (৬ জুন) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে উপজেলার খুটাখালী ইউনিয়নস্থ উত্তর ফুলছড়ি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার খুটাখালী ইউনিয়নের উত্তর ফুলছড়ি এলাকার মৃত মাস্টার আহমদ খাইরের ছেলে নুরুল ইসলাম হেলালী তার পৈত্রিকসূত্রে প্রাপ্ত ফুলছড়ি মৌজার ৪০ শতক জমি দীর্ঘদিনের ভোগদখলীয় জায়গায় স্থাপনা নির্মাণ করতে গেলে এতে বাঁধা দেন ওই এলাকার মৃত ছিদ্দিক আহমদের ছেলে আবদুল হামিদ গং। ভুক্তভোগী নুরুল ইসলাম হেলালী তার পৈত্রিকসূত্রে প্রাপ্ত ৪০ শতক জমিতে রবিবার বেলা ১২টার দিকে বসতি নির্মাণ করতে গেলে জমির প্রকৃত মালিককে প্রতিপক্ষরা সন্ত্রাসী কায়দায় বসতঘরের ঘেরা-বেড়া ভাংচুর চালিয়ে দেশীয় তৈরি ধারালো অস্ত্র-শস্ত্র নিয়ে ভয়ভীতি ও হুমকি প্রদান করেন। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে যে কোন মুহুর্তে বড় ধরণের রক্তক্ষয়ী সংঘর্ঘের আশঙ্কা করেছেন স্থানীয়রা। ঘটনার বিষয়ে ভুক্তভোগী নুরুল ইসলাম হেলালী বাদী হয়ে থানায় মামলার প্রস্ততি নিয়েছেন বলে তিনি জানান।

অভিযোগ অস্বীকার করে অভিযুক্ত আবদুল হামিদ দাবি করেছেন, নুরুল ইসলাম হেলালীর বসতি নির্মাণের জায়গাটি আমাদের খরিদা সম্পত্তি। এ জায়গাটি স্থানীয় ইসলামের কাছ থেকে ক্রয় করেছি। পরবর্তীতে স্থানীয়ভাবে বৈঠকে বসে কাগজপত্র পর্যালোচনা করে জায়গা নির্ণয় করা হবে।

এ ব্যাপারে চকরিয়া থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) আশরাফ হোসেন কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এ ধরণের ঘটনার বিষয়ে কেউ থানায় অবহিত করেনি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: চকরিয়া, বাঁধা, ভাংচুর
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

three + 4 =

আরও পড়ুন