চকরিয়ায় নানার বাড়িতে মাদ্রাসা ছাত্রীর আত্মহত্যা: স্বজনদের দাবি হত্যা

fec-image

কক্সবাজারের চকরিয়ায় গলায় ফাঁস দিয়ে শারমিন আক্তার(১৪) নামের এক মাদ্রাসা ছাত্রী তার নানার বাড়িতে আত্মহত্যা করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। তবে ছাত্রীর মৃত্যুর বিষয়টি নিয়ে এলাকায় মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে।

নিহতের স্বজনরা মাদ্রাসা পড়ুয়া ছাত্রীকে গলা টিপে হত্যা করার অভিযোগ তুলেছে তার পালিত (সৎ) নানী ছকিনা খাতুনের বিরুদ্ধে। তারা এ ঘটনাকে পরিকল্পিত হত্যা বলে দাবি করেছে। এ ঘটনায় পুলিশ প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নানী ছকিনা খাতুন (৬২) কে আটক করেছে। আটক ছকিনা খাতুন পৌরসভারস্থ হাজিয়ান এলাকার আবু ছৈয়দ মাঝির স্ত্রী।

শনিবার (১৪ মার্চ) বেলা ১২টার দিকে এ ঘটনা ঘটলেও তা প্রকাশ হয় দুপুর দেড়টার দিকে। চকরিয়া পৌরসভাস্থ ৮নম্বর ওয়ার্ডের হাজিয়ান এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত ছাত্রী শারমিন আকতার উপজেলার ডুলাহাজারা ইউনিয়নের ৩নম্বর ওয়ার্ডের চা-বাগান এলাকার মৃত নুরুল কবিরের পালিত মেয়ে। নিহতের মা সাজেদা বেগম বর্তমানে কাতার প্রবাসে রয়েছে।

স্থানীয় ও নিহতের স্বজনরা জানায়, নিহত ছাত্রী শারমিনকে তার বাবা নুরুল কবির ও মা সাজেদা বেগম এক মাস বয়সে আলীকদম থেকে দত্তক নিয়ে লালন পালন করেন। বিগত পাঁচ বছর পূর্বে তার পালিত বাবা মারা যান। বাবার মৃত্যুর পর তার মা সাজেদা বেগম তাকে নিয়ে মায়ের সাথে সৎ নানীর বাড়ি চলে আসে। দুই বছর পূর্বে বাবা মারা যাওয়ার পর তার পালিত মা সাজেদা বেগম কাতারে চলে যায়। মা বিদেশে চলে গেলে সে তার সৎ নানীর বাড়িতে থেকে পড়ালেখা করে আসছিল। হঠাৎ শনিবার দুপুরে মাদ্রাসা পড়ুয়া ছাত্রী শারমিন বাড়ির স্বজনদের অগোচরে তার সৎ নানার বাড়িতে দুপুরের দিকে ঘরের ছালায় ভীমের সাথে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে। তার সৎ নানী ছকিনা খাতুন তাকে দুপুরে খাবারের জন্য খোঁজে না পেয়ে বাড়ির ভেতরে গেলে ঘরের চালায় ভীমের সাথে গলায় ফাঁস দিয়ে তার লাশ দেখতে পাই। স্থানীয়রা তাকে ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে সরকারি হাসপাতালে নিয়ে আসলে তাকে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত্যু ঘোষণা করেন।

পরে খবর পেয়ে থানার এস আই প্রিয়লাল ঘোষ সঙ্গীয় পুলিশ ফোর্স নিয়ে হাসপাতালে গিয়ে নিহত ছাত্রী শারমিনের লাশ উদ্ধার পূর্বক প্রাথমিকভাবে সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করেন। চকরিয়া থানার উপপরিদর্শক (এস আই) প্রিয়লাল ঘোষ বলেন, নিহত ছাত্রীর গলায় আঘাতের চিহৃ পাওয়া গেছে। তবে কিভাবে তার মৃত্যু হয়েছে মেডিকেল রিপোর্ট হাতে পাওয়া পর্যন্ত তা এখন সঠিক বলা যাচ্ছেনা।

ডুলাহাজারা ইউপির প্যানেল চেয়ারম্যান শওকত জানান, নিহত শারমিনকে গলা টিপে হত্যা করা হয়েছে বলে তার স্বজনরা দাবি করেছে। নিহতের গলায় আঘাতের চিহৃ রয়েছে। তিনি বলেন, নিহতের সৎ নানী তাকে মৃত্যু অবস্থায় সরকারি হাসপাতালে নিয়ে আসলে খবর পেয়ে নিহতের আত্মীয় স্বজনেরা তার সৎ নানী ছকিনা খাতুনকে আটক করে পুলিশের কাছে সোপর্দ করেন।

চকরিয়া থানার অফিসার ইনর্চাজ (ওসি) মো: হাবিবুর রহমান বলেন, এক কিশোরীর লাশ হাসপাতালে আনা হয়েছে শুনে তাৎক্ষণিকভাবে পুলিশ পাঠানো হয়। কিভাবে তার মৃত্যু হয়েছে তা সঠিক বলা যাচ্ছেনা। নিহতের সুরুতহাল রিপোর্ট তৈরীর পর লাশ ময়না তদন্তের জন্য জেলা সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে বলে তিনি জানান।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: আত্মহত্যা, হত্যা
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

1 × one =

আরও পড়ুন