দিঘীনালায় চাকমা মেয়েকে তুলে নিয়ে নির্যাতনের অভিযোগ ইউপিডিএফের বিরুদ্ধে

fec-image

দীঘিনালায় ইউপিডিএফ ( প্রসিত) গ্রুপের বিরুদ্ধে এক পাহাড়ী মেয়েকে নির্যাতনের অভিযোগ করেছে ভুক্তভোগী পরিবার| অপহরণ এবং নির্যাতনের শিকার ওই পাহাড়ী মেয়ের নাম স্বপ্না চাকমা (২৬)| সে উপজেলার বাবুছড়া ইউনিয়নের লম্বাছড়া গ্রামের তরু চাকমার মেয়ে| গত রোববার মধ্যরাতে ৩/৪ জনের একটি দল এসে বাড়ী থেকে অপহরণ করে নিয়ে যায়| এঘটনায় ওই এলাকায় আতঙ্ক বিরাজ করছে|

এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, রোববার মধ্য রাতে ইউপিডিএফ (প্রসিত) গ্রুপের ৩/৪জনের একটি দল সশস্ত্র কায়দায় উপজেলার লম্বাছড়া গ্রামে হানা দেয়| পরে তারা তরু চাকমার বাড়ীতে এসে স্বপ্না চাকমাকে খোঁজাখুঁজি করে| স্বপ্না চাকমাকে পেয়ে তার চোখমুখ বেঁধে পার্শবর্তী সোনামিয়া টিলা এলাকার একটি বাড়িতে নিয়ে রাতভর নির্যাতন চালায়| পরে সকালে ছেড়ে দেয়| স্বপ্না চাকমার হাতে, পায়ে ও পিঠে জখমের চিহ্ন রয়েছে| অপহরণকারীরা স্বপ্নার সাথে জেএসএস সংস্কারের কোনো সম্পর্ক আছে কিনা জানার জন্য চাপ দেয় বলে জানা গেছে।

এব্যাপারে নির্যাতনের শিকার স্বপ্না চাকমা জানান, সন্ত্রাসীরা বাড়িতে ঢুকেই প্রথমে চোখমুখ বেধে ফেলে। পরে মারধর করতে করতে রাতে অন্ধকারে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে সারারাত আটকে রেখে নির্যাতন চালায়| পরে সকালে সোনামিয়া টিলা সংলগ্ন এলাকায় একটি বাড়ি বলে ধারণা করতে পারি|

এ ব্যাপারে স্বপ্না চাকমার বাবা তরু চাকমা জানান, আমার অবিবাহিত মেয়েটিকে তারা রাতভর নির্যাতন চালিয়েছে| আমি এঘটনার বিচার চাই |

ইউপিডিএফ ( গণতান্ত্রিক ) এর সহযোগী সংগঠনযুব সমিতির দীঘিনালা উপজেলা কমিটির সদস্য বিজয় চাকমা জানান, ইউপিডিএফ ( প্রসিত) পক্ষের নিকট কেও নিরাপদ নয়| সকল জুম্ম জনগণ স্বজাতির অস্তিত্ব রক্ষার্থে ঐক্যবদ্ধ এখনি হতে হবে|

ইউপিডিএফ (গণতান্ত্রিক )এর কেন্দ্রীয় সমন্বয়ক জনপ্রিয় চাকমা ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়ে বলেন, ইউপিডিএফ ( প্রসিত) পক্ষ প্রতিনিয়ত সাধারণ জনগণের উপর অমানবিক নির্যাতন চালিয়ে আসছে| এধরনের ঘটনায় যারাই জড়িত থাকুক, তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হওয়া উচিত |
এ ব্যাপারে ইউপিডিএফ প্রসীত গ্রুপের বক্তব্য নেয়ার জন্য তাদের একাধিক নেতার মোবাইল নম্বরে কল করলেও কেউই রিসিভ করে নি।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: ইউপিডিএফ, নারী নির্যাতন
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

eight + 2 =

আরও পড়ুন