বান্দরবান ই-পাসপোর্ট কার্যক্রম কর্মসূচির উদ্বোধন

fec-image

তথ্য প্রযুক্তিতে এগিয়ে যাচ্ছে দেশ আর সে লক্ষ্যে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয় হাতে নিয়েছে কাজ করছে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। উন্নয়নের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখতে পার্বত্য বান্দরবানে চালু হয়েছে ই-পাসপোর্ট কার্যক্রম কর্মসূচি।

যেখানে মানুষ আগে পুরনো পাসপোর্ট দিয়ে তাদের কার্যক্রম পরিচালনা করত এবং যার মেয়াদ ছিল পাঁচ বছর, বর্তমানে তা পরিবর্তন করে উন্নয়নের দিকে তথ্য প্রযুক্তিতে এগিয়ে নিয়েই পাসপোর্ট কার্যক্রম শুরু হয়েছে। এ কার্যক্রমের আওতায় পাসপোর্টের মেয়াদ বাড়িয়ে ১০ বছর করা হয়েছে এবং তার পৃষ্ঠা সংখ্যা বাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২৪ ডিসেম্বর) দুপুরে আনুষ্ঠানিকভাবে বান্দরবানেও ই-সেবা চালু করা হয়েছে।

ই-পাসপোর্ট কর্মসূচি উদ্বোধন অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা পাসপোর্ট অফিসের প্রকল্প পরিচালক লেফটেন্যান্ট কর্নেল মোহাম্মদ হোসেন, চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসের উপ-পরিচালক মাসুম হোসেন, জেলা প্রশাসক মোঃ দাউদুল ইসলাম, বান্দরবান আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসের সহকারী পরিচালক মোঃ সাখাওয়াত হোসেনসহ আরো অনেকে।

দেশের ৬টি জেলায় ইলেকট্রনিক পাসপোর্ট বা ই-পাসপোর্ট কার্যক্রম শুরু হচ্ছে আজ ২৪ ডিসেম্বর। দুপুরে আনুষ্ঠানিকভাবে চাঁদপুর, নারায়ণগঞ্জ, কক্সবাজার, বান্দরবান, রাঙামাটি ও খাগড়াছড়ি জেলায় একযোগে ই-পাসপোর্ট কার্যক্রম উদ্বোধন করবেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

উদ্বোধনের পরপরই পাসপোর্ট প্রত্যাশীরা নিয়ম অনুযায়ী অনলাইনে আবেদন করতে পারবেন। প্রয়োজনীয় মেশিন, মালামাল ও সফটওয়্যার স্থাপনের পাশাপাশি সংশ্লিষ্টদের প্রশিক্ষণও শেষ হয়েছে। গত ১০ নভেম্বর থেকে দেশের জেলাগুলোতে ইলেকট্রনিক পাসপোর্ট বা ই-পাসপোর্ট কার্যক্রম চালুর ঘোষণা দিয়েছিল পাসপোর্ট অধিদপ্তর। তবে অনেক সীমাবদ্ধতার কারণে সেই সময়ে তা চালু করা যায়নি।

উল্লেখ্য, দেশে গত ২২ জানুয়ারি থেকে ই-পাসপোর্ট কার্যক্রম শুরু হয়। বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতে তুলে দেন দেশের প্রথম ই-পাসপোর্ট। নিজের নামে ইস্যু করা ই-পাসপোর্ট গ্রহণ করে বিশ্বের ১১৯তম দেশ হিসেবে বাংলাদেশে ই-পাসপোর্ট বিতরণের আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম উদ্বোধন করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ইমিগ্রেশন ও পাসপোর্ট অধিদপ্তর জানিয়েছে, ই-পাসপোর্টের পাশাপাশি এমআরপিও চালু থাকবে। তবে এখন ছয় মাসের বেশি মেয়াদী এমআরপিধারীদের ই-পাসপোর্ট দেওয়া হচ্ছে না। মেয়াদ শেষে এমআরপি নবায়নের জন্য আবেদন ও নির্ধারিত ফি জমা দিলেই তারা ই-পাসপোর্ট পাবেন।

ই পাসপোর্ট এর বিষয়ে বান্দরবান পাসপোর্ট অফিসের সহকারীর আঞ্চলিক পরিচালক মোঃ সাখাওয়াত হোসেনের সাথে সরাসরি কথা বললে তিনি জানান ই-পাসপোর্ট মানুষের অনেক সুযোগ-সুবিধা বৃদ্ধি করে দিবে বিশেষ করে প্রবাসীদের জন্য এবং পাশাপাশি বাংলাদেশীদের জন্য। তিনি জানান ই-পাসপোর্ট ২১ কর্মদিবসের মধ্যে পাওয়া যাবে, জরুরী ভিক্তিতে ১০ কর্মদিবস, এবং অতীব জরুরি ভিত্তিতে দুই কর্মদিবসের মধ্যে ই-পাসপোর্ট সুবিধা পাবে সকলে। ৪৮ পৃষ্ঠা এবং ৬৮ পৃষ্ঠা দুই ক্যাটাগরিতে ই-পাসপোর্ট করা হবে, যা ক্যাটাগরি অনুযায়ী অফিস তার ভিত্তিতে ফিস নির্ধারণ করা হবে । তাই সকলেই আশাবাদী ই পাসপোর্ট সেবা কার্যক্রম বান্দরবানের মানুষের জন্য অনেক উপকারী হবে।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: প্রধানমন্ত্রী, বান্দরবান, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

eighteen + eleven =

আরও পড়ুন