রামুতে রোহিঙ্গা ভোটার করার চেষ্টায় দালাল আটক ও জরিমানা

fec-image

রামুতে রোহিঙ্গা ভোটার করার চেষ্টায় এক দালালকে ৩৫ হাজার টাকা জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমান আদালত।

বুধবার (৯ অক্টোবর) রামু উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট প্রণয় চাকমা এ সাজা দেন।

ভুয়া তথ্য দিয়ে বাংলাদেশী নাগরিক সেজে ভোটার হতে চাইলে দুই রোহিঙ্গাকে সনাক্ত করেন উপজেলা ভোটার তথ্য যাচাই বাছাইয়ের বিশেষ কমিটি।

দালালের মাধ্যমে অর্থের বিনিময়ে সনাক্তকৃত ওই দুই আবেদনকারী ভাই-বোন হলেন-উপজেলার জোয়ারিয়ানালা ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের মোবারক মিয়া ও তার বোন খালেদা আক্তার (যার ফরম নং- ৫৩২৬৬৮০৭ ও ৫৩২৬৬৮০৮)।

আবেদন ফরমে তারা পিতার নামের সাথে মিল রেখে বাংলাদেশী নাগরিককে পিতা বানিয়ে অন্যজনের এনআইডি কার্ড সংযুক্ত করে।

এ সময় মোবারক মিয়া এবং তার মাকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে বলেন, তাদের বাবা একজন রোহিঙ্গা তাই তারা স্থানীয় দালাল জোয়ারিয়ানালা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দপ্তরী, স্হানীয় মুরাপাড়ার আনর আলীর ছেলে মোহাম্মদুল হক (২৪) এর মাধ্যমে এসব ভুয়া কাগজ পত্র সংগ্রহ করেছে বলে জানান।

জাতীয় গোয়েন্দা সংস্থা এনএসআই রামুতে কর্মরত আবু হানিফ রোহিঙ্গা মোবারক মিয়া ও দালাল মোহাম্মদুল হককে তাৎক্ষনিক রামু উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট প্রণয় চাকমাকে হস্তান্তর করে।

ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে ইউএনও দালাল মোহাম্মদুল হককে দন্ডবিধি ১৮৬০ এর ২৯১ ধারায় ৩৫ হাজার টাকা জরিমানা করেন।

রামু উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা প্রণয় চাকমা বলেন, সরকারি নিষেধ থাকা সত্বেও নির্বাচনী কাজে বারংবার গণউপদ্রব করার অপরাধে মোহাম্মদুল হককে (২৪) ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে ৩৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। ভোটার আবেদন ফরমে ভুয়া তথ্য দিয়ে আবেদনকারীর স্বীকারোক্তি মোতাবেক তাকে এ সাজা দেয়া হয়।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: ভ্রাম্যমান আদালত, রোহিঙ্গা
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

three × four =

আরও পড়ুন