লংগদুতে প্রশান্তি অরণ্য কুটিরে দুদিন ব্যাপী কঠিন চীবর দানোৎসব

fec-image

রাঙামাটির লংগদু উপজেলার বামে আটারকছড়া প্রশান্তি অরণ্য কুটিরে অনুষ্ঠিত হলো দুদিন ব্যাপী বৌদ্ধ ধর্মবলম্বীদের সর্ববৃহৎ ধর্মীয় ও সামাজিক অনুষ্ঠান কঠিন চীবর দানোৎসব। গতকাল বৃহষ্পতিবার (১৭ অক্টোবর) থেকে এ উৎসব শুরু হয়। শুক্রবার (১৮ অক্টোবর) বিকেলে বৌদ্ধ ভিক্ষুসংঘকে চীবরদানের মধ্য দিয়ে শেষ হয় চীবরদান উৎসব।

বৃহষ্পতিবার বিকেলে থেকেই বিহার প্রাঙ্গনে আসতে থাকে প্রত্যন্ত এলাকার ধর্মপ্রাণ বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বী মানুষ। চীবরদান উপলক্ষে বিহারের আশে পাশে বসে মেলা। উৎসবে মেতে উঠেন বৌদ্ধ ধর্মবালম্বী ছাড়াও বিভিন্ন ধর্ম ও সম্প্রদায়ের মানুষ।

বৃহষ্পতিবার সন্ধ্যায় বৌদ্ধ ভিক্ষুরা প্রঞ্চশীল প্রার্থনা শেষে হাজার প্রদীপ প্রজ্বলন করেন। এর পর বেইন ঘর উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে শুরু হয় কঠিন চীবর দানের আনুষ্ঠানিকতা। বেইন ঘরে রাতভর উপাসক উপাসিকারা ব্যস্ত সময় পার করেন চীবর তৈরির কাজে। চীবর হচ্ছে বৌদ্ধ ভিক্ষুদের পরধীয় বিশেষ রঙ্গীন কাপড়। বেইন ঘরে মোট ৪৩ টি কোমর তাঁতে বৌদ্ধবলম্বী বিভিন্ন বয়সের নারীরা চীবর তৈরি করেন।

শুক্রবার সকালে (১ম পর্বে) বিভিন্ন পূজা শেষে বিহার মাঠে সমবেত পূন্যার্থীদের উদ্দেশ্যে দেশনা (উপদেশ মূলক বক্তব্য) রাঙামাটি বোধিপুর বনবিহারের অধ্যক্ষ শ্রীমৎ জিনবোধ মহাস্থবির, রাঙামাটি রাজ বনবিহারের শ্রীমৎ পূর্ণ জ্যোতি মহাস্থবির, শ্রীমৎ সত্য প্রেম মহাস্থবীর। এরপর পঞ্চশীল গ্রহণ, অষ্ট পরিষ্কার দান, কঠিন চীবর দান, কল্পতরু দান, ও হাজার বাতি দানসহ নানা দানীয় উৎসর্গ করা হয়। ধর্মীয় দেশনা দেন রাঙামাটি রাজ বন বিহারের আবাসিক সংঘ প্রধান শ্রীমৎ প্রজ্ঞালংকার মহাস্থবির, শ্রীমৎ সুধম্মানন্দ মহাস্থবির, প্রশান্তি অরণ্য কুটিরের অধ্যক্ষ শ্রীমৎ শুভ প্রিয় স্থবির।

অতিথি পর্বে কঠিন চীবরদান অনুষ্ঠান পরিচালনা কমিটির প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক কল্যাণ মিত্র চাকমার পরিচালনায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন, কঠিন চীবরদান অনুষ্ঠান পরিচালনা কমিটির আহবায়ক সত্য প্রসাদ দেওয়ান।

প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন, লংগদু উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল বারেক সরকার। পরে পূণ্যার্থীরা সন্ধ্যায় পূণ্যের উদ্দেশ্যে হাজার বাতি প্রজ্বলন ও আকাশ বাতি উৎসর্গ করেন।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

four × five =

আরও পড়ুন