রামগড়ে হাটে নেয়ার পথে গরু ছিনতাই: আটক-৩

fec-image

খাগড়াছড়ির রামগড়ে কোরবানির পশুর হাটে বিক্রির জন্য নেয়ার পথে দুটি গরু ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটেছে।

শুক্রবার (২ আগস্ট) রামগড় পৌরসভার মহামুনি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ ঐদিন বিকালেই ছিনতাই হওয়া গরু দুটি উদ্ধার এবং ঘটনার সাথে জড়িত তিনজনকে আটক করেছে।

আটককৃতরা হচ্ছে, পৌর এলাকার মাস্টারপাড়ার সাহাব উদ্দিনের ছেলে কামরুল হাসান(২২), তৈচালাপাড়ার শামছুল হকের ছেলে মো. শামিম(১৮) ও চৌধুরিপাড়ার মুফতি মীর হোসেনের ছেলে শওকত হোসেন(১৭)।

পুলিশ জানায়, শুক্রবার বেলা ১টার দিকে বাগানবাজার কোরবানির পশুর হাটে বিক্রির জন্য নেয়ার পথে মহামুনি এলাকায় ১০-১২ যুবক ষাঁড় গরু দুটি মালিকের কাছ থেকে জোরপূর্বক ছিনিয়ে নিয়ে যায়। উপজেলার প্রত্যন্ত এলাকা অন্তুপাড়া থেকে নিজের গরু দুটি হাটে নিয়ে যাচ্ছিলেন অংথোয়াই মারমা ও মংপ্রু মারমা

তারা জানান, ১০-১২ জন যুবক আগে থেকেই মহামুনি বৌদ্ধ বিহার সংলগ্নে ওৎ পেতে ছিল। গরু নিয়ে মহামুনি পৌঁছা মাত্র ঐ যুবকরা হঠাৎ এসে তাদের কাছ থেকে গরু দুটি জোর করে ছিনিয়ে নিয়ে যায়। ষাঁড় দুটির দাম কমপক্ষে দেড় লক্ষ টাকা হবে।

রামগড় থানার অফিসার্স ইনচার্জ(ওসি) তারেক মোহাম্মদ আব্দুল হান্নান জানান, গরু ছিনতাইয়ের খবর পাওয়ার সাথে সাথে পুলিশ অভিযানে নামে। বিকাল ৪টার দিকে পৌর সভার জগন্নাথপাড়া সংলগ্ন গোলটিলা এলাকা থেকে গ্রামবাসির সহযোগিতায় ছিনতাইকৃত গরু দুটি উদ্ধার করা হয় এবং সাড়ে ৪টায় ছিনতাই ঘটনার সাথে জড়িত তিনজনকে গ্রেফতার করা হয়।

ওসি আরও জানান, গরুর মালিকরা গ্রেফতারকৃতদের ছিনতাইকারি হিসেবে শনাক্ত করেছে। এ ব্যাপারে থানায় একটি মামলা রুজু হয়েছে। ছিনতাই ঘটনার সাথে জড়িত অন্য আসামিদের ধরতে পুলিশ তৎপরতা চালাচ্ছে।

এদিকে, গ্রেফতারকৃত যুবকরা উপজেলা ভাইস চেযারম্যানের লোক বলে অভিযোগ উঠলেও তিনি এ অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। ভাইস চেয়ারম্যান আনোয়ার ফারুক মোবাইল ফোনে বলেন,’ আমি ফেনিতে অবস্থান করছি। গরু ছিনতাইয়ের ঘটনাটি উপজেলা চেয়ারম্যানের কাছ থেকে শুনেছি। গ্রেফতারকৃতদের সাথে আমার কোন সম্পর্ক নেই।’

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: আটক, গরু ছিনতাই, রামগড়ে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

two × 5 =

আরও পড়ুন