‘আদিবাসী’ স্বীকৃতির দাবিতে আদিবাসী ছাত্র পরিষদের সমাবেশ

fec-image

ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীদের আদিবাসী হিসেবে স্বীকৃতি দেয়ার দাবিতে এক প্রতিবাদী সমাবেশের আয়োজন করেছে আদিবাসী ছাত্র পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটি।

বৃহস্পতিবার (৪ আগস্ট) শাহবাগের জাতীয় জাদুঘরের সামনে অনুষ্ঠিত এই সমাবেশে ঐতিহ্যগত বিদ্যা সংরক্ষণ ও বিকাশে নারীদের ভূমিকা এবং ৯ আগস্ট আন্তর্জাতিক আদিবাসী দিবস সফল করার আহ্ববান জানান আদিবাসী ছাত্র পরিষদ।

সমাবেশে বাংলাদেশ আদিবাসী ছাত্র পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি সাবিত্রী হেমব্রম বলেন, ‘১৯৭১ সালের যুদ্ধের কথা সবার জানা। মুক্তিযুদ্ধে শুধুমাত্র বাঙালিরা নয় আদিবাসীরাও অংশগ্রহণ করেছিল। তাদের রক্তে এ দেশ স্বাধীন হয়েছে। তাদের কথা ভুলে গেলে তো হবে না। আমাদেরকে অন্য দেশে পাঠিয়ে দিলে তো হবে না। আমরা এদেশের নাগরিক। বাংলাদেশকে স্বাধীন করতে বাঙালিদের যেরকম অবদান ছিল আদিবাসীদেরও সেরকম অবদান আছে।’

সরকারকে উদ্দেশ্যে সাবিত্রী হেমব্রম বলেন, ‘আমাদেরকে এখন কেন আদিবাসী জাতিসত্তা হিসেবে পরিচয় দিতে আপনাদের এত বাধা! বাংলাদেশে নিজেদের আত্মপরিচয় নিয়ে বেঁচে থাকতে চাই। দেশের নাগরিক হিসেবে, আদিবাসী হিসেবে স্বীকৃতি পেতে চাই।’

জাতীয় আদিবাসী পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির দপ্তর সম্পাদক সুভাষচন্দ্র হেমব্রম বলেন, ‘ ১৯৯৩ সাল থেকে আমরা জাতীয় আদিবাসী পরিষদ সারা বাংলাদেশে সংগ্রাম করে আসছে আদিবাসীদের আদিবাসী হিসেবে সাংবিধানিক স্বীকৃতির জন্য। বর্তমান জোট সরকার নির্বাচনে ২০০৮ সালে আসার সময়ে আদিবাসীদের আদিবাসী হিসেবে বলেছে। কিন্তু পরবর্তী সময়ে তারা তাদের সে শব্দটি অন্য দিকে প্রবাহিত করার চেষ্ট করছে। আমরা তার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই এবং সংবিধানের ২৩(ক) নং ধারায় আদিবাসীদের কে আদিবাসী না বলে ভিন্ন নামে আখ্যায়িত করেছে আমরা তার তীব্র নিন্দা জানাই।’

তিনি বলেন, ‘আমার পূর্বে একজন বক্তা বলেছেন কেউ যদি সুবাস হয় তাকে যদি আইন করে কাল থেকে হঠাৎ করে বলা হয়, সে কাল থেকে বিভূতি বা কাল থেকে রহিম! সে কি তা মেনে নেবে? অবশ্যই সে মেনে নেবে না! যার যে নামটা তাকে সে নামেই ডাকতে হবে। আজকে জাতিসংঘ যেখানে আন্তর্জাতিক আদিবাসী দিবস পালন করছে কিন্তু বাংলাদেশে যে রাষ্ট্র সেই রাষ্ট্র এই দিবসটি কে অস্বীকার করছে এবং অন্য দিবস হিসেবে সেটিকে পালন করার জন্য বিভিন্ন দপ্তরে তারা চিঠি দিয়েছে।’

শেষ পর্যায়ের বক্তব্যে আদিবাসী ছাত্র পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি নকুল পাহান বলেন, ‘আমরা একটি দাবি নিয়েই আজ শাহবাগে দাঁড়িয়েছি। সেই দাবিটি হচ্ছে আমাদেরকে আদিবাসী হিসেবেই সাংবিধানিক স্বীকৃতি দিতে হবে। আমরা এই রাষ্ট্রের কাছে বর্তমান ক্ষমতাসীন সরকারের কাছে আমরা বলতে চাই, বাংলাদেশের বসবাসরত আদিবাসীদেরকে আদিবাসী হিসেবে স্বীকৃতি দিতে হবে। আমরা দেখেছি গত ১৯ শে জুলাই তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয় থেকে আন্তর্জাতিক আদিবাসী দিবসে যেন কোন শিক্ষক বা গণমাধ্যমকর্মী আদিবাসী শব্দ ব্যবহার না করেন তার জন্য নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। আমরা এর প্রতিবাদ জানাই। আগামী ৯ আগস্ট পাহাড়, সমতল এবং ঢাকায় ঢাকঢোল পিটিয়ে আন্তর্জাতিক আদিবাসী দিবস আমরা পালন করা হবে।’

প্রতিবাদী সমাবেশে আরো বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ রবিদাস ফোরামের সাধারণ সম্পাদক শিবু রবিদাস, ছাত্র নেতা রাজ্ প্রসাদ মাহাতো সহ বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

15 + 16 =

আরও পড়ুন