ইসলামাবাদে চৌকিদারের বিরুদ্ধে কর্মস্থলে উপস্থিত না থেকে ভাতা উত্তোলনের অভিযোগ

fec-image

কক্সবাজার সদরের ইসলামাবাদ ইউনিয়ন পরিষদের নুরুল আজিম নামের ৬নং ওয়ার্ডের এক চৌকিদারের বিরুদ্ধে কর্মস্থলে উপস্থিত না থেকে ভাতা উত্তোলন ও পরিষদের গুরুত্বপূর্ণ কাগজপত্র গায়েবের গুরুতর অভিযোগ তুলেছে সাধারণ জনগণ।

জানা যায়, ইসলামাবাদ ইউনিয়ন পরিষদের ৬নং ওয়ার্ডের ছবেদ উল্লাহর ছেলে নুুুুরুল আজিম ওই ওয়ার্ডের চৌকিদারের পদটি আঁকড়ে আছে কয়েক বছর যাবত। সে ঐ পদে থেকেও মাসের পর মাস কর্মস্থলে অনুপস্থিত থেকে উধ্বর্তন সরকারি কর্মকর্তার আত্মীয় পরিচয়ের নাম ভাঙ্গিয়ে অবৈধভাবে ভাতা উত্তোলন করে যাচ্ছে। একজন চৌকিদারের উপর পরিষদ কর্তৃক অর্পিত দায়িত্ব ও জনগণকে সেবা দেয়ার যে নির্দেশনা রয়েছে তার কোনো সুফল পাচ্ছে না সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ডের জনগণ। উল্টো তার হয়রানিতে অতিষ্ট সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ডের জনসাধারণ।

পরিষদবর্গ ও এলাকার সচেতন ব্যক্তিরা তাকে বারবার সতর্ক করলে, সে উল্টো সরকারের উর্ধ্বতন প্রভাবশালী কর্মকর্তার সাথে তার হাত রয়েছে মর্মে হুমকি দিয়ে চৌকিদার পদটি আঁকড়ে ধরে বিনা দায়িত্বপালনে অবৈধ ভাবে বেতন ভাতা উত্তোলন করে যাচ্ছে নিয়মিত।

সম্প্রতি পরিষদের জন্ম মৃত্যু রেজিস্টার বই থেকে অসংখ্য নাগরিকের তথ্য সম্বলিত পাতা গায়েব হয়ে যায়। এ নিয়ে নাগরিক সেবা দিতে গিয়ে চরম বিপাকে পড়ে সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ডের মেম্বার, সচিব এবং চেয়ারম্যান। সে মমতাজ নামের অপর চৌকিদারকে তার সহযোগী বানিয়ে এসব অপকর্ম করে চলছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

উপরোক্ত অভিযোগের বিষয়ে চেয়ারম্যান নুর সিদ্দিকের সাথে যোগাযোগ করা হলে, তিনি উপরক্ত সব অভিযোগের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, তার বিরুদ্ধে বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। পরিষদ সচিব আলতাজের সাথে মোবাইলে যোগাযোগ করা হলে জানান, উপরক্ত অভিযোগ সত্য এবং তার বিরুদ্ধে পরিষদের গুরুত্বপূর্ণ তথ্য সম্বলিত কাগজপত্র গায়েব এবং সম্প্রতি সচিবের কক্ষে চুরির ঘটনা ও কাগজপত্র লুটের সাথে সে জড়িত। তার বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ বরাবর ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।

ওই চৌকিদারের ওয়ার্ডের মেম্বার দিদারুল ইসলামের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনিও অকপটে এসব অভিযোগ স্বীকার করে বলেন, তার বিরুদ্ধে এছাড়াও আরও বহু অভিযোগ রয়েছে। এমনকি সে সরকারের উচ্চপদস্থ এক কর্মকর্তার আত্মীয় পরিচয়ে নানা অপকর্ম করে চলেছে। সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ডের জনসাধারণ তার বিরুদ্ধে পাহাড় অভিযোগ তুলছে। এই চৌকিদারের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিয়ে নাগরিক সুবিধা ত্বরান্বিত করতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের জরুরি হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন সংশ্ললিষ্টরা।

অভিযোগ ওঠা চৌকিদার নুরুল আজিমের সাথে যোগাযোগ করা হলে সব অস্বীকার করে এসব তার বিরুদ্ধে শত্রুতা বলে দাবি করেন। অপর অভিযোগ উঠা ১নং ওয়ার্ডের চৌকিদার মমতাজের সাথে যোগাযোগ করা হলে উপরক্ত অভিযোগসহ নুুরল আজিমের সহযোগী বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, চৌকিদার আজিম দুই বছরেরও বেশি সময় ধরে পরিষদে না এসে ভাতা উত্তোলন করছে।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: অভিযোগ, কক্সবাজার, চৌকিদারের বিরুদ্ধে
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

3 × 1 =

আরও পড়ুন