উখিয়ায় শফিউল্লাহকাটা রোহিঙ্গা ক্যাম্পে স্থানীয়দের মসজিদ ভেঙ্গে ব্রাকের অফিস নির্মাণের ঘটনায় উত্তেজনা

fec-image

কক্সবাজারের উখিয়া উপজেলার শফিউল্লাহকাটা ১৬নং ক্যাম্পে দীর্ঘদিনের মসজিদ ভেঙ্গে এনজিও ব্রাকের অফিস নির্মাণের ঘটনায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে। এনিয়ে স্থানীয়দের উত্তেজনা দেখা দিয়েছে। এ ঘটনায় শফিউল্লাহকাটার স্থানীয় লোকজন মঙ্গলবার সকালে ব্রাক ও ক্যাম্প প্রশাসনের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সভা করেছে।

শফিউল্লাকাটার স্থানীয় বাসিন্দা জাফর আলমের ছেলে ও গ্রাম কমিটির সভাপতি একেএম সাইফুল ইসলাম বলেন, শফিউল্লাহকাটা এলাকায় ১৪৩টি স্থানীয় পরিবার রয়েছে। এই পরিবার গুলো রোহিঙ্গা না আসার পূর্ব থেকে সেখানে বসবাস করে আসছে। রোহিঙ্গা আসার পর এই পরিবার গুলো দীর্ঘদিনের ক্ষেত-খামারসহ কৃষি জমি হারিয়েছে। মানবতা দেখিয়ে তাদের বসতবাড়ীর আঙ্গিনায় রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিয়েছে। কিন্তু বর্তমানে রোহিঙ্গাদের কারণে তারা বিভিন্ন হয়রানী, হুমকি-ধমকি শিকার হচ্ছে।

সে জানায়, স্থানীয়দের দীর্ঘদিনের ধর্মীয় অনুশাসনের একমাত্র স্থান মসজিদ। সেই মসজিদ ভেঙ্গে এনজিও সংস্থা ব্রাক অফিস নির্মাণের ষড়যন্ত্র করছে। সে আরও জানায়, কেয়ার নামের এনজিও সংস্থার গর্তে পড়ে স্থানীয় লোকের একটি গরু মারা যায়, বিষয়টি ক্যাম্প ইনচার্জসহ সকলকে জানানোর পরেও তার এখনো ক্ষতিপূরণ দেয়নি। শফিউল্লাহকাটা এলাকায় একজন স্থানীয় লোক বেঁচে থাকতে ব্রাকের এই ষড়যন্ত্র কখনো সফল হবেনা। বিভিন্ন দাবি-দাওয়া স্থানীয় নারী-পুরুষ বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সভা করেছে বলে সে জানায়।

এব্যাপারে জানার জন্য শফিউল্লাহকাটা ১৬ ক্যাম্পের ইনচার্জ (সিআইসি) কাজী ফারুকের নিকট জানার জন্য ফোন করা হলে তিনি মিটিংয়ে আছেন বলে ফোন কেটে দেন।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: রোহিঙ্গা ক্যাম্পে
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

16 − five =

আরও পড়ুন