চকরিয়ায় দুই স্কুলছাত্রীকে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ: থানায় মামলা

fec-image

কক্সবাজারের চকরিয়ায় দশম ও অষ্টম শ্রেণির দুই স্কুল ছাত্রীকে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ উঠেছে। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে আক্রান্ত ছাত্রীদের উদ্ধার করেছে। গত ২২ জুন রাতে এ ঘটনা ঘটলেও ২৪ জুন রাতে আক্রান্ত ছাত্রীর বাবা থানায় ঘটনার বিষয়ে এজাহার দায়ের করলে যৌন নিপীড়নের বিষয়টি জানাজানি হয়।

উপজেলার উপকূলীয় বদরখালী ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ডস্থ লম্বাখালী পাড়ায় এ ঘটনা ঘটে।

আক্রান্তের পরিবার ও মামলার এজাহার সূত্র জানা গেছে, ভিকটিমের বাবা-মা তাদের পার্শ্ববর্তী এক প্রতিবেশীর ছেলে অসুস্থ হওয়ায় তাকে নিয়ে ওই বাড়ির লোকজনসহ চিকিৎসা করাতে যান। ওই দিন স্কুল পড়ুয়া অষ্টম শ্রেণির ছাত্রীকে রাতে প্রতিবেশী অসুস্থ ছেলের বাড়িতে তাদের মেয়ের সাথে থাকতে বলেন। সেই সুযোগে একই এলাকার জয়নাল আবেদীন প্রকাশ জনু মাঝির ছেলে আবু হাসান মোহাম্মদ ইব্রাহিম জুয়েল (২৫) ভিন্ন অজুহাত দেখিয়ে দরজা খুলতে বলেন ওই কিশোরীদের। দরজা খুলতেই অষ্টম শ্রেণিতে পডুয়া ছাত্রীকে জুয়েল চেতনানাশক হাতে রুমাল দিয়ে মুখ চেপে ধরে অজ্ঞান করেন। পরে অপর ছাত্রীকে ভয়ভীতি দেখিয়ে ঘুমের ওষুধ খাওয়াতে বাধ্য করে। পরে তারা দুইজনই অজ্ঞান হয়ে পড়লে অভিযুক্ত জুয়েল তাদের যৌন নিপীড়ন চালায়। সকালে তাদের জ্ঞান ফিরলে তারা কান্নাকাটি শুরু করে। পরে প্রতিবেশীর বাড়িতে থাকা ছাত্রীসহ তাদের ঘটে যাওয়া যৌন নিপীড়নের ঘটনা বাবা-মা’র কাছে বিষয়টি জানায়। পরে আক্রান্তের পরিবার ৯৯৯ হেল্প লাইনে ফোন দিয়ে অভিযোগ করে। চকরিয়া থানা পুলিশের একটি টিম দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌছে তাদের উদ্ধার পূর্বক পুলিশ ঘটনার বিবরণ শুনে দুই ছাত্রীকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতাল (ওসিসিতে) ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস পাঠানো হয়।

চাঞ্চল্যকর এ ঘটনা নিয়ে আক্রান্ত এক ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে ২৪ জুন রাতে যৌন নিপীড়নের ঘটনায় এজাহার দায়ের করেন।

যৌন নিপীড়নের ঘটনার বিষয়ে চকরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শাকের মোহাম্মদ যুবায়ের-এর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ভিকটিম দুই জনকে উদ্ধার করে চিকিৎসা জন্য কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে ওসিসিতে পাঠানো হয়েছে। এ নিয়ে এক ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করেন। আসামি গ্রেপ্তারে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলে তিনি জানান।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: চকরিয়া, মামলা, যৌন নিপীড়ন
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

eighteen + 15 =

আরও পড়ুন