টেকনাফে ৩ মণ মাছ জব্দ, ২ লাখ মিটার কারেন্ট জাল ধ্বংস

fec-image

কক্সবাজারের টেকনাফে সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে মাছ ধরায় উপজেলার বিভিন্ন মৎস্য ঘাটে অভিযান চালিয়ে প্রায় দুই লাখ মিটার নিষিদ্ধ কারেন্ট ও বাধা জাল জব্দ করে পুড়িয়ে ধ্বংস করা হয়। এ সময় ১২০ কেজি বিভিন্ন প্রজাতির সামুদ্রিক মাছ জব্দ করা হয়।

উপজেলা জ্যৈষ্ঠ মৎস্য কর্মকর্তা মো. দেলোয়ার হোসেন জানান, রবিবার (২৯ মে) সকাল থেকে রাত পর্যন্ত কক্সবাজার-টেকনাফ মেরিন ড্রাইভ সংলগ্ন সমুদ্র উপকূলের বিভিন্ন জেলে ঘাটে ভ্রাম্যমাণ আদালত ও মৎস্য অফিস অভিযান চালিয়ে নিষিদ্ধ ২ লাখ মিটার কারেন্ট জাল ও ১২০ কেজি মাছ জব্দ করে। তবে এ সময় কোন জেলেকে আটক করা যায়নি।

অভিযানের নেতৃত্বে ছিলেন টেকনাফ উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোহাম্মদ কায়সার খসরু। পরে অভিযানে জব্দকৃত জাল রবিবার রাতে ঘাট এলাকায় পুড়িয়ে ফেলা হয় এবং জব্দকৃত ১২০ কেজি মাছ স্থানীয় এতিমখানায় দিয়ে দেয়া হয়।

এসময় উপস্থিত ছিলেন টেকনাফ কোস্টগার্ড স্টেশান কমান্ডার লে. কমান্ডার সৈয়দ তৈয়মুর পাশা, টেকনাফ উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা মো. দেলোয়ার হোসেন ও টেকনাফ নৌ-পুলিশের ওসি মো. নান্নু মিয়াসহ সংশ্লিষ্ট দপ্তরের কর্মকর্তা কর্মচারীগণ।

উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মো. দেলোয়ার হোসেন বলেন, সামুদ্রিক মাছের সুষ্ঠু প্রজনন, উৎপাদন ও সামুদ্রিক মৎস্য সম্পদ সংরক্ষণ এবং টেকসই মৎস্য আহরণের জন্য সরকার কর্তৃক ঘোষিত সময়কাল তথা ২০ মে হতে ২৩ জুলাই পর্যন্ত মোট ৬৫ দিন সমুদ্রে সকল প্রকার মৎস্য আহরণ কার্যক্রম নিষিদ্ধ থাকবে। তা অমান্য করলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে এবং আমাদের এ অভিযান অব্যাহত থাকবে।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

3 + three =

আরও পড়ুন