গত কয়েক দিনের প্রবল বর্ষণে মাতারবাড়ীর মানুষ পানিবন্দি

fec-image

দেশের মেগা প্রকল্পের স্থান মহেশখালীর মাতারবাড়ী এখন জলমগ্ন হয়ে পুরো লোকালয় পানির নিচে ডুবে আছে। প্রকল্প বাস্তবায়নের দায়িত্বে নিয়োজিত কোল পাওয়ার কর্তৃক এলাকার পানি নিস্কাশনের জন্য বসানো কালর্ভাট পর্যাপ্ত পরিমানের না হওয়ায় এবং স্লুইচ গেইট বন্ধ থাকায় বর্ষার শুরুতে সেখানে দেখা দিয়েছে জলজট। গত কয়েক দিনের প্রবল বর্ষণে মাতারবাড়ীর যে সব গ্রামের মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছে তার ওয়ার্ড ভিত্তিক বাস্তব চিত্র হচ্ছে,

১ নং ওয়ার্ডের পশ্চিম সিকদার পাড়া,পূর্ব সিকদার পাড়া,
২নং ওয়ার্ডের- বান্ডি সিকদার পাড়া, খন্দার বিল,
৩ নং ওয়ার্ডের – দক্ষিণ রাজ ঘাট,
৪ নং ওয়ার্ডের – লাইল্যা ঘোনা, মনহাজির পাড়া,
৫ নং ওয়ার্ডের – পশ্চিমে বেড়ী বাঁধের ভাঙ্গন ও স্লুইচ গেইট বন্ধ থাকার কারণে পশ্চিম মনহাজির পাড়া, মিয়াজীর পাড়া, ষাইট পাড়া ও বলীর পাড়া,
৬ নং ওয়ার্ডের– পশ্চিম তিতামাঝির পাড়া,পূর্ব তিতামাঝির পাড়া,
৭ নং ওয়ার্ডের–রুস্তমদোনা স্লুইচ গেইট বন্ধ থাকার কারণে পূর্ব মাইজ পাড়া,ফুলজান মুরা, মোশারফ আলী পাড়া,নয়া পাড়া, মাঝির ডেইল,
৮ নং ওয়ার্ডের– কয়লা বিদ্যুৎ প্রকল্প সংলগ্ন মগডেইল এলাকা,
৯ নং ওয়ার্ডের- সাইরার ডেইল।

এ সব এলাকার বসতি এখন পানির নিচে। জলবদ্ধতার সৃষ্টি হওয়ায় এখানকার লোকজন এক স্থান থেকে অন্য স্থানে যাতায়ত করতে পোহাতে হচ্ছে সীমাহীন দুর্ভোগেরর শিকার হচ্ছে স্থানীয় জনগণ। ঘরবাড়ীতে পানি উঠে বন্ধ হয়ে গেছে রান্নাবান্না।

স্থানীয় ঠিকাদার আবদুচ ছত্তার ও শওকত ইকবাল মুরাদ জানান, মনহাজি পাড়ার রাস্তা একেবারে পানির নিচে ডুবে যাওয়ায় স্কুল ও মাদ্রাসাগামী শিক্ষার্থীদের পোহাতে হচ্ছে অবর্ণনীয় দূর্ভোগ। অপরদিকে মাতারবাড়ী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এস.এম আবু হায়দার সাংবাদিকদের টেলিফোনে জানান, কোল পাওয়ার কর্তৃপক্ষ পানি নিষ্কাশনের স্লুুইচ গেইট বন্ধ করে দেয়ায় বৃষ্টির পানিতে গত কয়েকদিন ধরে মাতারবাড়ীর অধিকাংশ এলাকা এখন পানির নিচে। পর্যাপ্ত পরিমাণ পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা করার জন্য তিনি কোল পাওয়ার কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

মাতারবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক মেম্বার প্রবাসী আব্দুল বারেক জানান, মাতারবাড়ীর মানুষ চলতি বর্ষায় পড়েছে উভয় সংকটে। একদিকে পশ্চিমে বেড়ীবাঁধ ও পূর্বে কোহেলিয়া নদীর বেড়ী বাঁধের ভাঙ্গনে ঢুকছে জোয়ারের পানি। অপর দিকে প্রবল বর্ষণে বৃষ্টির পানি দ্রুত নিস্কাশনের জন্য ব্যবস্থা না থাকায় জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়ে শত শত বাড়ী ঘর পানিবন্দি হয়ে পড়েছে।

এ সব পানিবন্ধি খেটে খাওয়া অসহায় গরীব লোকজনকে জরুরী ভিত্তিতে খাদ্য ও ত্রাণ সহায়তা প্রদানের জন্য তিনি স্থানীয় প্রশাসন তথা সরকারের প্রতি দাবি জানান।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: মহেশখালী, মাতারবাড়ী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

five × three =

আরও পড়ুন