আলীকদমের দুর্গম অঞ্চলে সেনাবাহিনীর উদ্যোগে কলেরা আক্রান্তদের চিকিৎসাসেবা প্রদান

fec-image

বান্দরবানের আলীকদম উপজেলার ৫নং কুরুকপাতা ইউনিয়নের মাংরুম পাড়া, ম্যানলিউপাড়া এবং সমর্থং পাড়ায় বিগত কয়েক দিন যাবত ব্যাপক আকারে কলেরার প্রাদুর্ভাব দেখা যায়।  বর্তমানে উক্ত পাড়াসমূহে মুরং জনগোষ্ঠীর প্রায় ১৩৬ জন নারী, পুরুষ ও শিশু যা সর্বমোট জনসাধারণের প্রায় শতকরা ষাট ভাগ কলেরায় আক্রান্ত হয়ে মূমুর্ষ অবস্থায় জীবন-যাপন করছেন। এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়।

প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে আরও জানানো হয়, আক্রান্ত ব্যক্তিবর্গের মধ্যে বেশ কয়েকজন নারী ও পুরুষ ইতিমধ্যে মৃত্যুবরণ করেছেন। কলেরা প্রাদুর্ভাব এর শুরু থেকেই আলীকদম সেনা জোনের টহল দলের মাধ্যমে উক্ত পাড়াসমূহে প্রতিনিয়ত বিশুদ্ধ পানি, পানি বিশুদ্ধকরণ ট্যাবলেট, খাবার স্যালাইন ও প্রয়োজনীয় ওষুধ বিনামূল্যে বিতরণ করা হয়।

উক্ত এলাকার স্বাস্থ্য পরিস্থিতির দ্রুত অবনতি হওয়াতে জনসাধারণের সুচিকিৎসার জন্য বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ২৪ পদাতিক ডিভিশনের আওতাধীন সদর দপ্তর ৬৯ পদাতিক ব্রিগেডের নির্দেশনায় অদ্য ১৪ জুন ২৩তম বাংলাদেশ ইনফ্যান্ট্রি রেজিমেন্ট এর উদ্যোগে একটি সামরিক মেডিক্যাল টিম এবং স্থানীয় উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্স এর একটি বেসামরিক বিশেষজ্ঞ দলকে উক্ত দুর্গম এলাকায় সামরিক হেলিকপ্টারযোগে প্রেরণ করা হয়। এ সময় জরুরী স্বাস্থ্য পরিস্থিতি মোকাবেলায় বিপুল সংখ্যক জীবনরক্ষাকারী ওষুধ, পানি বিশুদ্ধকরণ ট্যাবলেট, কলেরা স্যালাইন, খাবার স্যালাইনসহ প্রয়োজনীয় অন্যান্য ওষুধ এবং শুকনো খাবার ও বিশুদ্ধ পানি হেলিকপ্টারযোগে দুর্গত এলাকায় প্রেরণ করা হয়েছে।

প্রেরিত মেডিক্যাল টিম বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর তত্ত্বাবধানে দুর্গতদের সহায়তায় ঘটনাস্থলে একটি ফিল্ড হাসপাতাল তৈরি করে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা সেবা প্রদান করবে। পরিস্থিতি বিবেচনা করে দুর্গতদের প্রয়োজন অনুযায়ী সকল ধরনের সহায়তার জন্য ২৪ পদাতিক ডিভিশনের ৬৯ পদাতিক ব্রিগেড সর্বদা প্রস্তুত রয়েছে। হেলিকপ্টারযোগে মেডিক্যাল টিম প্রেরণের সময় জোন কমান্ডার, আলীকদম জোন, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর মেডিক্যাল অফিসার, অন্যান্য সামরিক কর্মকর্তা এবং ইলেকট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়ার সাংবাদিকগণ উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশ সেনাবাহিনী যে পার্বত্য চট্টগ্রামে বসবাসরত সকল ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর যে কোন আপদকালীন সময়ে তাদের পাশে থেকে সর্বাত্মক সহায়তা প্রদান করে আসছে এটি তারই একটি দৃষ্টান্তমূলক উদাহরণ। বাংলাদেশ সেনাবাহিনী ভবিষ্যতেও পার্বত্য এলাকার ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী সহ সকল জাতি ও ধর্মের মানুষের পাশে থেকে তাদের জীবনমান উন্নয়ন এবং তাদের যে কোন প্রয়োজনে সর্বদা নিরলস ভাবে কাজ করে যাবে।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: আলীকদম, কলেরা, চিকিৎসাসেবা
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

15 − three =

আরও পড়ুন