স্বপ্নসিঁড়ির স্বপ্নপূরণ

পানছড়ি লোগাং জোন কাপ ফুটবলে চ্যাম্পিয়ন স্বপ্নসিঁড়ি

পানছড়ি প্রতিনিধি পানছড়ি ৩’বিজিবি লোগাং জোনের ব্যবস্থাপনায় জোন কাপ ফুটবলের বর্ণিল ফাইনাল অনুষ্ঠিত হয়েছে। ৩’বিজিবির সাজানো দৃষ্টিনন্দন মাঠে রবিবার (২৯ মে) বিকাল ৩.০০ মি. থেকে ফাইনাল উপভোগে মাঠের চারিদিক দখলে নেয় হাজার হাজার পুরুষ ও প্রমিলা দর্শক। দৃষ্টিনন্দন নৃত্য পরিবেশনের পর পরই শুরু হয় স্বপ্নের ফাইনাল। এতে অংশ নেয় পূজগাং স্বপ্নসিড়ি ক্লাব বনাম ফাতেমা নগর মেঘনা যুব কল্যাণ সংঘ। খেলায় প্রথমার্ধ গোলশূন্য অবস্থায় শেষ হলেও দ্বিতীয়ার্ধে সুমেন চাকমার হ্যাট্টিকের সুবাধে পূজগাং স্বপ্নসিড়ি ক্লাব ৪-০ গোলে জয় তুলে নেয়। খেলা শেষ বাঁশি বাজার সাথে সাথে স্বপ্নসিড়ি স্বপ্নসিড়ি স্লোগানে পুরো মাঠ ছিল মুখরিত। ৩’বিজিবি লোগাং জোনের অধিনায়ক লে. কর্ণেল রুবায়েত আলম প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে দু’দলের হাতে চ্যাম্পিয়ন ও রানার্সআপ ট্রফি তুলে দেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন লোগাং জোনের উপ-অধিনায়ক মেজর জাহিদুল ইসলাম, মেডিকেল অফিসার ক্যাপ্টেন মো. মশিউর রহমান, ইউপি চেয়ারম্যান জয় কুমার চাকমা, আনন্দজয় চাকমা, উচিত মনি চাকমা ও মো. আহির উদ্দিন। তিন খেলায় ছয় গোল করে স্বপ্ন সিড়ির সুমেন চাকমা সর্বোচ্চ গোলদাতা ও একিই দলের রাকেশ চাকমা টুর্নামেন্টের সেরা খেলোয়াড়ের পুরষ্কার ও নগদ প্রাইজমানি লাভ করে। টুর্নামেন্টে সর্বমোট ৮টি দল নক আউট পদ্ধতিতে অংশ নিয়েছিল।

পানছড়ি ৩’বিজিবি লোগাং জোনের ব্যবস্থাপনায় জোন কাপ ফুটবলের বর্ণিল ফাইনাল অনুষ্ঠিত হয়েছে।

৩’বিজিবির সাজানো দৃষ্টিনন্দন মাঠে রবিবার (২৯ মে) বিকাল ৩.০০ মি. থেকে ফাইনাল উপভোগে মাঠের চারিদিক দখলে নেয় হাজার হাজার পুরুষ ও প্রমিলা দর্শক। দৃষ্টিনন্দন নৃত্য পরিবেশনের পর পরই শুরু হয় স্বপ্নের ফাইনাল। এতে অংশ নেয় পূজগাং স্বপ্নসিঁড়ি ক্লাব বনাম ফাতেমা নগর মেঘনা যুব কল্যাণ সংঘ।

খেলায় প্রথমার্ধ গোলশূন্য অবস্থায় শেষ হলেও দ্বিতীয়ার্ধে সুমেন চাকমার হ্যাট্টিকের সুবাধে পূজগাং স্বপ্নসিঁড়ি ক্লাব ৪-০ গোলে জয় তুলে নেয়। খেলা শেষ বাঁশি বাজার সাথে সাথে স্বপ্নসিড়ি স্বপ্নসিঁড়ি স্লোগানে পুরো মাঠ ছিল মুখরিত।

৩’বিজিবি লোগাং জোনের অধিনায়ক লে. কর্ণেল রুবায়েত আলম প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে দু’দলের হাতে চ্যাম্পিয়ন ও রানার্সআপ ট্রফি তুলে দেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন লোগাং জোনের উপ-অধিনায়ক মেজর জাহিদুল ইসলাম, মেডিকেল অফিসার ক্যাপ্টেন মো. মশিউর রহমান, ইউপি চেয়ারম্যান জয় কুমার চাকমা, আনন্দজয় চাকমা, উচিত মনি চাকমা ও মো. আহির উদ্দিন।

তিন খেলায় ছয় গোল করে স্বপ্ন সিড়ির সুমেন চাকমা সর্বোচ্চ গোলদাতা ও একিই দলের রাকেশ চাকমা টুর্নামেন্টের সেরা খেলোয়াড়ের পুরষ্কার ও নগদ প্রাইজমানি লাভ করে। টুর্নামেন্টে সর্বমোট ৮টি দল নক আউট পদ্ধতিতে অংশ নিয়েছিল।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: পানছড়ি, ফুটবল, স্বপ্নসিঁড়ি
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

2 × four =

আরও পড়ুন