মিয়ানমারের নির্বাচন : রাখাইন রাজ্যে ক্ষমতাসীন দলের তিন প্রার্থী অপহৃত 

fec-image

রাখাইন রাজ্যের টাঙ্গুপ টাউনশিপে নির্বাচনী প্রচারণা করতে গিয়ে  ন্যাশনাল লিগ ফর ডেমোক্রেসির (এনএলডি) তিন প্রার্থী অজ্ঞাতপরিচয়ের অস্ত্রধারীদের হতে অপহৃত হয়েছেন।

বুধবার (১৪ অক্টোবর) এ ঘটনা ঘটে। তিনজনের মধ্যে দা নি নি মে মাইন্ট লোয়ার হাউসের আসনে প্রার্থী, ডাউ চিট চিত চ উচ্চ আঞ্চলিক আসনে প্রার্থী এবং ইউ মিন অং রাখাইন রাজ্য সংসদে একটি আসনে প্রার্থী।

টাউংআপ টাউনশিপের একজন এনএলডি সদস্য নাম প্রকাশ না করার শর্তে দ্য ইরাওয়াদ্দিকে বলেন, “আমরা যতদুর জানি, আজ (বুধবার) সকাল ৯টার দিকে যখন তারা ফাগং খা গ্রামে প্রচারে যাচ্ছিল তখন তাদের অপহরণ করা হয়। যারা প্রার্থীদের সাথে ছিলেন, আমরা এখনও তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারিনি। শুনেছি তারা ভয়ে লুকিয়ে আছে।”

এনএলডি’র মুখপাত্র ডা. মায়ো নিউন্ট তাইংপে দলীয় তিন প্রার্থীর অপহরণের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

“তারা প্রচারে ফাউং খা গ্রামে যাচ্ছিল। একদল অজ্ঞাতপরিচয় লোক অস্ত্র নিয়ে এসে তাদের দুপুরের আগে অপহরণ করে নিয়ে যায়। তাদের নৌকায় করে ইয়ানবায় নিয়ে যাওয়া হয়। এটাই আমরা জানি,”- ডাঃ মায়ো নিয়ান্ট বলছিলেন।

“আমি কোন দল সম্পর্কে অনুমান করতে চাই না যে, কারা তাদের অপহরণ করেছে। সরকারি প্রচারমূলক কর্মকাণ্ডে জড়িত দলের সদস্যদের আটক করা কোনও গ্রুপের পক্ষে গ্রহণযোগ্য নয়। এটি করার ফলে তাদের উপর জনসাধারণের আস্থায় নেতিবাচক প্রভাব পড়বে।”

“তারা যদি জাতিগত এবং ঘরোয়া সমস্যা সমাধান করতে চায়, তবে প্রার্থীদের ছেড়ে দেওয়া তাদের জন্য ভালো হবে।” -তিনি যোগ করেন।

তাইংআপ থানার ওসি, পুলিশ মেজর থান নাইং বলেন, পুলিশ অপহৃত তিন প্রার্থীকে সক্রিয়ভাবে অনুসন্ধান করছে।

“আমরা কার্যকর ব্যবস্থা নিচ্ছি। তবে অনুসন্ধানের স্বার্থে এ সম্পর্কে এখনই কিছু প্রকাশ করতে চাইছি না।” – তিনি বলছিলেন।

বুধবারের অপহরণটি গত বছরের শেষের থেকে এনএলডি সদস্যদের ধারাবাহিক অপহরণের সাথে জড়িত বলে ধারণা করা হচ্ছে।

উল্লেখ্য, গত বছরের নভেম্বরে, চিন রাজ্যের পালেতওয়ার এনএলডি আপার হাউসের সদস্য আইনজীবী ইউ হুই টিনকে অপহরণ করা হয়েছিল। সেই সময়ে আরাকান আর্মি (বর্তমানে একটি অঞ্চলে স্বায়ত্তশাসনের জন্য কেন্দ্রীয় সরকারের সাথে লড়াই চালিয়ে যাওয়া একটি জাতিগত রাখাইন সশস্ত্র গোষ্ঠী) আইন প্রণেতার অপহরণের দায় স্বীকার করেছে।  ৭৯ দিন আটক থাকার পরে জানুয়ারিতে তাকে মুক্তি দেওয়া হয়।

ডিসেম্বরে, রাখাইনের বুথিডাং টাউনশিপ অফিসের স্থানীয় এনএলডি প্রধান এএ হেফাজতে থাকাকালীন মারা যান। আন্তর্জাতিক আদালতে গাম্বিয়ার আনা গণহত্যা মামলার বিরুদ্ধে মিয়ানমারের রাষ্ট্রপক্ষের কাউন্সিলর ডা. অং সান সু চি’র সমর্থনে একটি সমাবেশ করার পরে তাকে অপহরণ করা হয়েছিল।

এএ দাবি করে, ইউ ইয়ে থেইন আটককালে সামরিক হামলায় নিহত হয়েছিল, কিন্তু মিয়ানমার সেনাবাহিনী এই দাবি অস্বীকার করেছে। এই বছরের গোড়ার দিকে নির্বাহী কমিটির সদস্য এবং এনএলডি’র ইয়ানবাই টাউনশিপ অধ্যায়ের কোষাধ্যক্ষ ইউ জিয়ার মিনকে ফেব্রুয়ারিতে অজ্ঞাত সশস্ত্র লোকেরা অপহরণ করে। তিনি পরে জুন মাসে মুক্তি পান।

সূত্র: The Irrawaddy

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: মিয়ানমার, রাখাইন
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

5 × 3 =

আরও পড়ুন