কাপ্তাইয়ে ক্যান্সার আক্রান্ত মেয়েকে বাঁচাতে অসহায় বাবার আকুতি

fec-image

রাঙ্গামাটি জেলার কাপ্তাই উপজেলার ৪নং ইউনিয়নের জাকির হোসেন স্ মিলস্থ শিল্প এলাকায় বসবাসরত মো. নুরুল আমিন ওরফে নুরু মিস্ত্রী  নামে সকলের নিকট পরিচিত। দীর্ঘদিন যাবৎ কাপ্তাইয়ে তার পরিবার পরিজন নিয়ে স্থায়ী ভাবে বাসবাস করে আসছে।  স্ত্রী,  ২ ছেলে ৪ মেয়ে নিয়ে সুখে সংসার চলে আসলে ও হঠ্যৎ করে তার সুখের সংসারে গত নয় মাস যাবৎ দুঃখের যন্ত্রণা আর কান্না বয়ে চলছে।

নুরু মিস্ত্রির বিবাহিত বড় মেয়ে নাজমা আক্তার নাজু (৩৫) মরণব্যাধি ক্যান্সার রোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে। দীর্ঘ নয় মাস পূর্বে হঠ্যৎ অসুস্থ হয়ে পড়লে চট্টগ্রাম মেডিকেল হাসপাতাল পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হয়। ডাক্তার পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর দেখে নাজুর ফুসফুসে টিউমার হয়েছে। আড়াই লক্ষ টাকা ব্যয় করে টিউমার অপারেশন করা হয় এবং ভালো হয়।

কিন্তু বিধিবাম ফুসফুসে টিউমার ভাল হলেও কিছু দিন পর আবার অসুস্থ হয়ে পরে। পুনরায় ডাক্তারের নিকট শরণাপন্ন হলে মরণব্যাধি ক্যান্সারে আক্রান্ত ধরা পড়ে। একথা শুনে পরিবার-পরিজন কান্নায় ভেঙে পড়ে। স্ত্রীর  ক্যান্সার আক্রান্ত হওয়ার কথা শুনে পাষণ্ড  স্বামী শামসুল আলম  নাজুকে তার বাবা-মার নিকট ফেলে  রেখে চলে যায়।

এদিকে অসহায় বাবা মেয়ের চিকিৎসার জন্য সহায় সম্বল জায়গা-জমি সব কিছু বিক্রি করে সর্বস্বান্ত হয়ে পড়েছে। ১৫দিন অন্তর ক্যান্সার থেরাপিতে ৫০ হাজার টাকা খরচ হয়। মেয়ের চিকিৎসা করাতে এবং থেরাপি দিতে না পারায় প্রতিদিন ঘরের মধ্যে চলে কান্না।

অসুস্থ নাজমা আক্তার নাজু বলেন, আপনাদের দয়া ও সাহায্য সাহযোগিতায় আমি বাঁচতে চাই। আমাকে একটু সাহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিন। টাকার অভাবে দিনদিন মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ছে ক্যান্সার আক্রান্ত  নাজমা আক্তার নাজু। তার অসহায় পিতা মো. নুরুল আমিন ওরফে নুরু মিস্ত্রি তার মেয়ের সু-চিকিৎসার জন্য সমাজের প্রতিটি লোকের নিকট সাহায্যের আবেদন জানান।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: কাপ্তাই, ক্যান্সার
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

three × 1 =

আরও পড়ুন