রোয়াংছড়ি-বান্দরবান সড়কে ঝুঁকি নিয়ে যান চলাচল

fec-image

রোয়াংছড়ি-বান্দরবান প্রধান সড়ক ছোট ও বড় প্রায় ১২টি বেইলি সেতুর মধ্যে ৪টি সেতু ব্যাপক ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে।রোয়াংছড়ি থেকে জেলা শহর বান্দরবানের যাওয়া-আসার একটি মাত্র সড়ক। এ সড়কে প্রতিনিয়ত ভারী ও মাঝারি যানবাহন, ছোট বড় মটরযান চলাচলের ব্যস্ততম সড়ক হয়ে উঠেছে। এই সড়কে ছোট ও বড় মিলে প্রায় ১২টি সেতু রয়েছে। তার মধ্যে ৪টি বেইলি সেতুটি উপর দিয়ে যান চলাচল করতে ব্যাপক ঝুঁকিতে রয়েছে।

৪টি সেতু হচ্ছে, রোয়াংছড়ি উপজেলা সদরের জিরো পয়েন্টে তারাছা খালের উপর পুরানো বেইলি সেতু, ১১ কিলোমিটার পুনর্বাসন পাড়া এলাকার বেইলি সেতু, ক্রাইক্ষ্যং পাড়া ও বিজিপি সেক্টর সদর দপ্তর এলাকার সেতু এবং ৪ কিলোমিটার এলাকার স্বাগতম সেতুসহ এ ৪টি সেতুটিতে নিচে বেইজের অংশে মাটি দেবে ও মাটি সরে যাওয়ায় যে কোন সময়ে ভারী যানবাহন চলাচল করলে মর্মান্তিক দুর্ঘটনা ঘটাতে পারে বলে ধারণা করছে এলাকার সংশ্লিষ্টরা।

এলাকার ঘুরে দেখা গেছে, পাহাড়ি ঢলে সেতুটিতে বেইজের নিচে অংশে পিলারের নিচে মাটি দেবে পাহাড়ি ঢলে মাটিগুলো সরে গিয়ে পুরানো গাইড ওয়ালগুলো ভেঙ্গে পড়েছে। সেতুর নিচে মাটির সুরক্ষার্থে নির্মিত অধিকাংশই গাইড ওয়ালে ভেঙ্গে পড়ে যাওয়ায় ভারী ও মাঝারি যান চলাচলে ঝুঁকি ও মৃত্যুকূপে পরিণত হয়েছে। কাঁচামাল ব্যবসায়ী মো. আলঙ্গীর বলেন, আমরা প্রতিনিয়ত ট্রাক ও মিনি ট্রাক ভরে মৌসুম অনুযায়ী কাঁচামাল নিয়ে ব্যবসা করছি। কিন্তু বর্তমানে বান্দরবান ও রোয়াংছড়ি সড়কে অধিকাংশই বেইলি সেতুর নিচে মাটি সরে ভেঙ্গে যাওয়ায় দৈনন্দিন যান চলাচলে ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে উঠেছে।

মালামাল বহনকারী ড্রাইভার মো. আমির বলেন, ব্রিজ ভেঙ্গে যাওয়া অবস্থা দেখেও না দেখার ভান করে আতঙ্ক নিয়ে গাড়ি চালাচ্ছি। এসড়কে প্রায় ব্রিজ ভাঙ্গা রয়েছে কিন্তু করার কিছুই নাই।

স্থানীয় জনপ্রতিনিধি চাইসিং মারমা বলেন, আমার ওয়ার্ড এলাকার কয়েকটি বেইলি সেতু পুরানো হয়ে যাওয়ায় গাড়ি চড়ে আসা যাওয়া করতে খুব সমস্যা হচ্ছে। সড়ক ও জনপথ কর্তৃপক্ষ দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ করলে যান চলাচল ও জনগণের সুবিধা হবে।

সড়ক ও জনপথ বিভাগের উপ-সহকারী প্রকৌশলী অংশৈপ্রু মারমা বলেন, বান্দরবান ও রোয়াংছড়ি সড়কে ১১টি সেতুর মধ্যে ৫টি সেতু অত্যন্ত ঝুঁকিতে থাকায় হানসামা পাড়া এলাকায় নোয়াপতং খালের উপর বেইলি সেতুটি পরিবর্তে নতুন গার্ডার সেতু নির্মাণে কাজ চলমান রয়েছে। ইতোমধ্যে ঝুঁকিপূর্ণ থাকা সেতুটিকে পরিদর্শন করে রোয়াংছড়ি সদর জিরো পয়েন্টে বড় বেইলি সেতু, ১১ কিলোমিটার পুনর্বাসন পাড়া এলাকার বেইলি সেতু ও ৪ কিলোমিটার এলাকার স্বাগতম সেতুসহ ৩টি সেতু ব্যাপক ঝুঁকি থাকায় নতুন সেতু নির্মাণের লক্ষে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে প্রতিবেদন পাঠানো হয়েছে। অনুমোদন হয়ে আসলে দ্রুতই কাজ শুরু করা হবে।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: বান্দরবান, রোয়াংছড়ি, সড়ক
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

2 × 3 =

আরও পড়ুন